পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (অষ্টম খণ্ড) - সুলভ বিশ্বভারতী.pdf/৪৩৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


8 Abr রবীন্দ্ৰ-রচনাবলী একটি প্রৌঢ় ব্যক্তির প্রবেশ । কী মশায়, আপনি কে । প্রৌঢ় ব্যক্তি । আজ্ঞে, আমার নাম শ্ৰীবনমালী ভট্টাচাৰ্য, ঠাকুরের নাম রামকমল ন্যায়চষ্ণু, নিবাসশ্ৰীশ । আর অধিক আমাদের ঔৎসুক্য নেই। এখন কী কাজে এসেছেন সেইটেবনমালী । কাজ কিছুই নয় । আপনারা ভদ্রলোক, আপনাদের সঙ্গে আলাপ পরিচয়— শ্ৰীশ । কাজ। আপনার না থাকে আমাদের আছে। এখন, অন্য কোনো ভদ্রলোকের সঙ্গে যদি আলাপ-পরিচয় করতে যান তা হলে আমাদের একটু বনমালী । তবে কাজের কথাটা সেরে নিই। শ্ৰীশ । সেই ভালো । বনমালী । কুমারটুলির নীলমাধব চৌধুরি-মশায়ের দুটি পরমাসুন্দরী কন্যা আছে- তাদের বিবাহযোগ্য বয়স হয়েছে শ্ৰীশ । হয়েছে তো হয়েছে, আমাদের সঙ্গে তার সম্বন্ধটা কী । বনমালী । সম্বন্ধ তো আপনারা একটু মনোযোগ করলেই হতে পারে । সে আর শক্ত কী । আমি সমস্তই ঠিক করে দেব । বিপিন । আপনার এত দয়া অপাত্রে অপব্যয় করছেন । বনমালী । অপাত্ৰ ! বিলক্ষণ ! আপনাদের মতো সৎপাত্ৰ পাব কোথায় । আপনাদের বিনয়গুণে আরো মুগ্ধ হলেম । শ্ৰীশ । এই মুগ্ধভােব যদি রাখতে চান তা হলে এইবেলা সরে পড়ুন। বিনয়গুণে অধিক টান সয় না । বনমালী । কন্যার বাপ যথেষ্ট টাকা দিতে রাজি আছেন । শ্ৰীশ । শহরে ভিক্ষুকের তো অভাব নেই। ওহে বিপিন, তোমার আমোদ বোধ হচ্ছে, কিন্তু এরকম সদালাপ আমার ভালো লাগে না । বিপিন । পালাই কোথায় । ভগবান এঁকেও যে লম্বা একজোড়া পা দিয়েছেন । শ্ৰীশ । যদি পিছু ধরেন তা হলে ভগবানের সেই দান মানুষের হাতে পড়ে খোয়াতে হবে । বনমালী । আমিই যাই । [প্ৰস্থান চন্দ্ৰীমাধববাবুর প্রবেশ চন্দ্ৰবাবু। পূর্ণ। শ্ৰীশ । আজ্ঞে, আমি শ্ৰীশ । চন্দ্ৰবাবু। আমাদের এই সভার সভ্যসংখ্যা অল্প হওয়াতে কারও হতাশ্বাস হবার কোনো কারণ নেই শ্ৰীশ । হতাশ্বাস ? সেই তো আমাদের সভার গৌরব । এ সভার মহৎ আদর্শ এবং কঠিন বিধান কি সর্বসাধারণের উপযুক্ত । আমাদের সভা অল্প লোকের সভা । চন্দ্ৰবাবু । (কার্যবিবরণের খাতাটা চোখের কাছে তুলিয়া) কিন্তু আমাদের আদর্শ উন্নত এবং বিধান কঠিন বলেই আমাদের বিনয় রক্ষা করা কর্তব্য ; সর্বদাই মনে রাখা উচিত আমরা আমাদের সংকল্পসাধনের যোগ্য : না হতেও পারি। ভেবে দেখো পূর্বে আমাদের মধ্যে এমন অনেক সভ্য ছিলেন র্যারা হয়তো আমাদের চেয়ে সর্বাংশে মহত্তর ছিলেন, কিন্তু তারাও নিজের সুখ এবং সংসারের প্রবল আকর্ষণে একে একে লক্ষ্যভ্রষ্ট । হয়েছেন। আমাদের কয়জনের পথেও যে প্রলোভন কোথায় অপেক্ষা করছে তা কেউ বলতে পারে না 1; সেইজন্য আমরা দম্ভ পরিত্যাগ করব এবং কোনো রকম শপথেও বদ্ধ হতে চাই নে। আমাদের মত এই ; যে, কোনো কালে মহৎ চেষ্টাকে মনে স্থান না দেওয়ার চেয়ে চেষ্টা করে অকৃতকাৰ্য হওয়া ভালো | পাশের ঘরে ঈষৎ-মুক্ত দরজার অন্তরালে একটি শ্রোত্রী এই কথায় যে একটুখানি বিচলিত হইয়া উঠিল, তাহার অঞ্চলবদ্ধ চাবির গোছায় দুই-একটা চাবি যে একটু ঠুন শব্দ করিল তাহা পূর্ণ ছাড়া আর কেহ লক্ষ্য করিতে পারিল না।