পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (অষ্টম খণ্ড) - সুলভ বিশ্বভারতী.pdf/৪৫৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


8V-br রবীন্দ্ৰ-রচনাবলী শ্ৰীশ । (হাসিয়া) আপনি যখন এতটা অভয় দিচ্ছেন তখন অত্যন্ত নিশ্চিন্ত হলুম- কিন্তু ওঁর ক্ষমাগুণের পরিচয় নেবার দরকার হবে না, নাম ভুল করব না মশায় । রসিক । আপনি না করতে পারেন, কিন্তু আমি করি মশায় । উনি আমার সম্পর্কে নাতি হন ; সেইজন্যে ওঁর সম্বন্ধে আমার রসনা কিছু শিথিল, যদি কখনো এক বলতে আর বলি সেটা মাপ করবেন। শ্ৰীশ । অবলাকান্তবাবু, আপনি এ-সমস্ত কী আয়োজন করেছেন। আমাদের সভার কার্যাবলীর মধ্যে 2िांझों छिन नां । রসিক । (উঠিয়া) সেই ক্রটি যিনি সংশোধন করেছেন তাকে সভার হয়ে ধন্যবাদ দিই। শৈল । (থালা সাজাইতে সাজাইতে) শ্ৰীশবাবু, আহারটাও কি আপনাদের নিয়মবিরুদ্ধ । শ্ৰীশ । (বিপুলায়তন বিপিনকে টানিয়া আনিয়া) এই সভ্যটির আকৃতি নিরীক্ষণ করে দেখলেই ও সম্বন্ধে কোনো সংশয় থাকবে না । বিপিন । নিয়মের কথা যদি বলেন অবলাকান্তবাবু, সংসারের শ্রেষ্ঠ জিনিস মাত্রই নিজের নিয়ম নিজেই সৃষ্টি করে ; ক্ষমতাশালী লেখক নিজের নিয়মে চলে, শ্রেষ্ঠ কাব্য সমালোচকের নিয়ম মানে না। যে মিষ্টান্নগুলি সংগ্রহ করেছেন এ সম্বন্ধেও কোনো সভার নিয়ম খাটতে পারে না ; এর একমাত্র নিয়ম, বসে যাওয়া এবং নিঃশেষ করা । ইনি যতক্ষণ আছেন ততক্ষণ জগতের অন্য সমস্ত নিয়মকে দ্বারের কাছে অপেক্ষা করতে হবে । শ্ৰীশ । তোমার হল কী বিপিন । তোমাকে খেতে দেখেছি বটে, কিন্তু এক নিশ্বাসে এত কথা কইতে শুনি fR Cx) | বিপিন । রসনা উত্তেজিত হয়েছে, এখন সরস বাক্য বলা আমার পক্ষে অত্যন্ত সহজ হয়েছে । যিনি আমার জীবনবৃত্তান্ত লিখবেন, হায়, এ সময়ে তিনি কোথায় ? রসিক । (টাকে হাত বুলাইতে বুলাইতে) আমার দ্বারা সে কাজটা প্রত্যাশা করবেন না, আমি এত দীর্ঘকাল অপেক্ষা করতে পারব না । নূতন ঘরের বিলাসসজ্জার মধ্যে আসিয়া চন্দ্রমাধববাবুর মনটা বিক্ষিপ্ত হইয়া গিয়াছিল। তাহার উৎসাহস্ৰোত যথাপথে প্রবাহিত হইতেছিল না । তিনি ক্ষণে ক্ষণে কাৰ্যবিবরণের খাতা ক্ষণে ক্ষণে নিজের করকোষ্ঠী অকারণে নিরীক্ষণ করিয়া দেখিতেছিলেন শৈলবালা । (চন্দ্ৰবাবুর সম্মুখে গিয়ে) সভার কার্যের যদি কিছু ব্যাঘাত করে থাকি তো মাপ করবেন। চন্দ্ৰবাবু, কিছু জলযোগ চন্দ্ৰবাবু । এ-সমস্ত সামাজিকতায় সভার কার্যের ব্যাঘাত করে, তাতে সন্দেহ নেই। রসিক । আচ্ছা, পরীক্ষা করে দেখুন, মিষ্টান্নে যদি সভার কার্য রোধ হয় তা হলে— বিপিন ।। (মৃদুস্বরে) তা হলে ভবিষ্যতে নাহয় সভাটা বন্ধ রেখে মিষ্টান্নটা চালালেই হবে। শ্ৰীশ । আসুন রসিকবাবু। আপনি উঠছেন না যে ? রসিক । রোজ রোজ যেচে এবং মাঝে মাঝে কেড়ে খেয়ে থাকি, আজ চিরকুমার-সভার সভ্যরূপে আপনাদের সংসৰ্গগৌরবে কিঞ্চিৎ উপরোধের প্রত্যাশায় ছিলুম, কিন্তু শৈলবালা । “কিন্তু’ আবার কী রসিকদাদা । তুমি যে রবিবার করে থাক, আজ তুমি কিছু খাবে নাকি । রসিক । দেখছেন মশায় ! নিয়ম আর-কারও বেলায় নয়, কেবল রসিকদাদার বেলায় । নাঃ, “বলং বলং বাহুবলম । উপরোধ-অনুরোধের অপেক্ষা করা নয়। বিপিন । (চারটিমাত্র ভোজনপত্র দেখিয়া) আপনি আমাদের সঙ্গে বসবেন না ? শৈলবালা । না, আমি পরিবেশন করব । 5ीe । (न कि श् । শৈলবালা । আমাকে পরিবেশন করতে দিন, খাওয়ার চেয়ে তাতে আমি ঢের বেশি খুশি হব । শ্ৰীশ। রসিকবাবু, এটা কি ঠিক হচ্ছে।