পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (অষ্টম খণ্ড) - সুলভ বিশ্বভারতী.pdf/৪৬১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চিরকুমার-সভা 88V নীরবালা । কেন, এত অপমান কেন । দিদির কাছে তাড়া খেয়ে আমাদের উপরে বুঝি তার ঝাল। ঝাড়তে হবে ? অক্ষয় । এরা দেখছি পবিত্র জেনানা আর রাখতে দিলে না । আরো দুৰ্বত্তে, এখনই লোক আসবে। নৃপবালা । তার চেয়ে বলো-না দিদির চিঠিখানা শেষ করতে হবে। নীরবালা । তা, আমরা থাকলে মই বা, তুমি চিঠি লেখো-না, আমরা কি তোমার কলমের মুখ থেকে কথা কেড়ে নেব না কি । অক্ষয় । তোমরা কাছাকাছি থাকলে মনটা এইখানেই মারা যায়, দূরে যিনি আছেন সে পর্যন্ত আর পৌছয় না । না, ঠাট্টা নয়, পালাও । এখনই লোক আসবে- ঐ একটি বৈ দরজা খোলা নেই, তখন পালাবার পথ পাবে না । নৃপবালা । এই সন্ধেবেলায় কে তোমার কাছে আসবে। অক্ষয় । যাদের ধ্যান করে তারা নয় গো, তারা নয় । নীরবালা । যার ধ্যান করা যায় সে সকল সময় আসে না, তুমি আজকাল সেটা বেশ বুঝতে পারছি, কী বল মুখুজেমশায় । দেবতার ধ্যান কর আর উপদেবতার উপদ্রব হয় — 5R ও আমার ধ্যানেরই ধান, তোমায় হৃদয়ে দোলায় যে হাসি রোদিন । আসে বসন্ত, ফোটে বকুল, কুঞ্জে পূর্ণিমা-চাদ হেসে আকুলতারা তোমায় খুঁজে না পায়, প্ৰাণের মাঝে আছ গোপন স্বপন । অক্ষয় । সংগ্ৰহ হল কোথা থেকে । নীরবালা । তোমারই শ্ৰীমুখ থেকে । অক্ষয় । অবশেষে বিরহের দিনে আমারই শ্ৰীবক্ষে হানতে এসেছিস । আচ্ছ, তা হলে দয়া করিস নে, একেবারে শেষ করে দে । নীরবালা - আঁখিরে ফাকি দাও একি ধারা VSNITTSFGF VG < 3 || গন্ধ আসে, কেন দেখি নে মালা পায়ের ধবনি শুনি, পথ নিরালা । বেলা যে যায়, ফুল যে শুকায়অনাথ হয়ে আছে আমার ভুবন । নেপথ্যে । অবলাকান্তবাবু আছেন ? সহসা শ্ৰীশের প্রবেশ মাপ করবেন বলিয়া পলায়নোদ্যম । নৃপ ও নীরর সবেগে প্ৰস্থান অক্ষয় । এসো এসো শ্ৰীশবাবু। শ্ৰীশ । (সলজভাবে) মাপ করবেন। অক্ষয় । রাজি আছি, কিন্তু অপরাধটা কী আগে বলো । শ্ৰীশ । খবর না দিয়েই অক্ষয় । তোমার অভ্যর্থনার জন্য মুনিসিপালিটির কাছ থেকে যখন বাজেট স্যাংশন করে নিতে হয় না। উখন নাহয় খবর না দিয়েই এলে শ্ৰীশবাবু।