পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (অষ্টম খণ্ড) - সুলভ বিশ্বভারতী.pdf/৪৭৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চিরকুমার-সভা 8. অক্ষয়ের প্রবেশ অক্ষয় । (স্বগত) নাঃ, দুটি নবযুবকে মিলে আমাকে আর ঘরে তিষ্ঠাতে দিলে না দেখছি। একটি তো গিয়ে চোরের মতো আমার ঘরের মধ্যে হাতড়ে বেড়াচ্ছিলেন- ধরা পড়ে ভালোরকম জবাবদিহি করতে পারলে না, শেষকালে আমাকে নিয়ে পড়ল। তার খানিক বাদেই দেখি দ্বিতীয় ব্যক্তিটি গিয়ে ঘরের বইগুলি নিয়ে উলটেপালটে নিরীক্ষণ করছে । তফাত থেকে দেখেই পালিয়ে এসেছি। বেশ মনের মতো করে চিঠিখানি যে লিখব এরা তা আর দিলে না— আহা, চমৎকার জ্যোৎস্না হয়েছে। শ্ৰীশ । এই-যে অক্ষয়বাবু। অক্ষয় । ঐ রে । একটা ডাকাত ঘরের মধ্যে, আর একটা ডাকাত পথের ধারে । হা প্রিয়ে, তোমার ধ্যান থেকে যারা আমার মনকে বিক্ষিপ্ত করছে তারা মেনকা উর্বশী রম্ভ হলে আমার কোনো খেদ ছিল না।-- মনের মতো ধ্যানভঙ্গও অক্ষয়ের অদৃষ্ট নেই, কলিকালে ইন্দ্ৰদেবের বয়স বেশি হয়ে বেরসিক হয়ে উঠেছে। বিপিনের প্রবেশ বিপিন । এই-যে অক্ষয়বাবু, আপনাকেই খুঁজছিলুম। অক্ষয় । হায় হতভাগ্য, এমন রাত্রি কি আমাকে খোজ করে বেড়াবার জন্যই হয়েছিল - In such a night as this, When the sweet wind did gently kiss the trees And they did make no noise, in such a night Troilus methinks mounted the Trojan walls And sighed his soul toward the Grecian tents, Where Cressid lay that night. Sri in such a night আপনি কী করতে বেরিয়েছেন অক্ষয়বাবু। রসিক - অপসরতি ন চক্ষুষো মৃগাক্ষী রাজনিরিয়াং চ ন যাতি নৈতি নিদ্ৰা । চক্ষু-পরে মৃগাক্ষীর চিত্ৰখানি ভাসেরজনীও নাহি যায়, নিদ্ৰাও না আসে । অক্ষয়বাবুর অবস্থা আমি জানি মশায় । অক্ষয় । তুমি কে হে । রসিক । আমি রসিকচন্দ্ৰ— ঢুই দিকে দুই যুবককে আশ্রয় করে যৌবনসাগরে ভাসমান । অক্ষয় । এ বয়সে যৌবন সহ্য হবে না রসিকদাদা । রসিক ; যৌবনটা কোন বয়সে যে সহ্য হয় তা তো জানি নে, ওটা অসহ্য ব্যাপার। শ্ৰীশবাবু, আপনার কিরকম বোধ হচ্ছে । শ্ৰীশ। এখনো সম্পূর্ণ বোধ করতে পারি নি। রসিক । আমার মতো পরিণত বয়সের জন্যে অপেক্ষা করছেন বুঝি ?--- অক্ষয়দা, আজ তোমাকে বড়ো ७भन्मNन्मश्, ८२ोgन्छ । অক্ষয় । তুমি তো অন্যমনস্ক দেখবেই, মনটা ঠিক তোমার দিকে নেই।— বিপিনবাবু, তুমি আমাকে খুঁজছিলে বললে বটে, কিন্তু খুব যে জরুরি দরকার আছে বলে বোধ হচ্ছে না, অতএব আমি এখন বিদায় হই- একটু বিশেষ কাজ আছে। [अंशन