প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (ষোড়শ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/২১০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


२* २ রবীন্দ্র-রচনাবলী শ্রীশ ও বিপিনের প্রবেশ ঐশ। তা তো পারে পূর্ণবাবু, কিন্তু, সেই উৎসাহের অভাবেই কি আজ সভায় যেতে বিলম্ব হচ্ছে । চন্দ্রবাবু না না, দেরি হবার কারণ, আমার গলার বোতামটা কিছুতেই খুজে পাচ্ছি নে । শ্ৰীশ । গলায় তো একটা বোতাম লাগানো রয়েছে দেখতে পাচ্ছি, আরও কি প্রয়োজন আছে। যদি বা থাকে, আর ছিদ্র পাবেন কোথা । চন্দ্রবাবু। (গলায় হাত দিয়া ) তাই তো – আমরা সকলেই তো উপস্থিত আছি এখন সেই কথাটার আলোচনা হয়ে যাওয়া ভালো, কী বল পূর্ণবাবু। পূর্ণ। সে বেশ কথা, কিন্তু এ দিকে দেরি হয়ে যাচ্ছে না ? চন্দ্রবাবু না, এখনও সময় আছে। শ্ৰীশবাবু, তোমরা একটু বোসো-না, কথাটা একটু স্থির হয়ে ভেবে দেখবার যোগ্য । আমার একটি ভাগ্নী আছেন, র্তার নাম নির্মলা— 攀 পূর্ণ হঠাৎ কাশিয়া লাল হইয়া উঠিল আমাদের কুমারসভার সমস্ত উদ্দেশ্যের সঙ্গে তার একান্ত মনের মিল। শ্ৰীশ এবং বিপিন অবিচলিত নিরুৎসুকভাবে শুনিয়া যাইতে লাগিল এ কথা আমি নিশ্চয় বলতে পারি, তার উৎসাহ আমাদের কারও চেয়ে কম নয় । শ্ৰীশ ও বিপিনের কাছ হইতে কিছুমাত্র সাড়া না পাইয়। চক্রবাবুও মনে মনে একটু উত্তেজিত হইতেছিলেন এ কথা আমি ভালোরূপ বিবেচনা করে দেখে স্থির করেছি, স্ত্রীলোকের উৎসাহ পুরুষের সমস্ত বৃহৎ কার্যের মহৎ অবলম্বন। কী বল পূর্ণবাৰু ? পূর্ণ। (নিস্তেজভাবে) তা তো বটেই। চন্দ্রবাবু। (হঠাৎ সবেগে ) নির্মলা যদি কুমার-সভার সভ্য হবার জন্য প্রার্থী থাকে, তা হলে তাকে আমরা সভ্য না করব কেন । পূর্ণ। বলেন কী চন্দ্রবাবু। শ্ৰীশ । আমরা কখনো কল্পনা করি নি যে, কোনো স্ত্রীলোক আমাদের সভার সভ্য হতে ইচ্ছা প্রকাশ করবেন, সুতরাং এ সম্বন্ধে আমাদের কোনো নিয়ম নেই— বিপিন। নিষেধও নেই। শ্ৰীশ। স্পষ্ট নিষেধ না থাকতে পারে কিন্তু আমাদের সভার যে-সকল উদ্দেশু তা স্ত্রীলোকের দ্বারা সাধিত হবার নয় ।