প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (ষোড়শ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/২৯৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চিরকুমার-সভা २४१ চন্দ্রবাবুর প্রবেশ চন্দ্রবাবু। এই-যে, আপনারা এসেছেন। পূর্ণবাবুকেও দেখছি। অক্ষয় । আজ্ঞে না, আমি পূর্ণ নই, তবু অক্ষয় বটে। চন্দ্রবাবু। অক্ষয়বাৰু। তা, বেশ হয়েছে, আপনাকেও দরকার ছিল । অক্ষয় । আমার মতো অদরকারি লোককে যে দরকারে লাগাবেন তাতেই লাগতে পারি— বলুন কী করতে হবে। চন্দ্রবাবু। আমি ভেবে দেখেছি, আমাদের সভা থেকে কুমারত্রতের নিয়ম না ওঠালে সভাকে অত্যন্ত সংকীর্ণ করে রাখা হচ্ছে। শ্ৰীশবাবু বিপিনবাবুকে এই কথাটা একটু ভালো করে বোঝাতে হবে। অক্ষয়। ভারী কঠিন কাজ, আমার দ্বারা হবে কিনা সন্দেহ। চন্দ্রবাবু একবার একটা মতকে ভালো বলে গ্রহণ করেছি বলেই সেটাকে পরিত্যাগ করবার ক্ষমতা দূর করা উচিত নয়। মতের চেয়ে বিবেচনাশক্তি বড়ো। শ্ৰীশবাবু, বিপিনবাবু— শ্ৰীশ । আমাদের অধিক বলা বাহুল্য— চন্দ্রবাবু। কেন বাহুল্য। আপনার যুক্তিতেও কর্ণপাত করবেন না ? বিপিন। আমরা আপনারই মতে— চন্দ্রবাবু। আমার মত এক সময় ভ্রান্ত ছিল সে কথা স্বীকার করছি, আপনার এখনও সেই মতেই— রসিক। এই-যে পূর্ণবাবু আসছেন। আস্থন আম্বন। পূর্ণর প্রবেশ চন্দ্রবাবু। পূর্ণবাবু, তোমার প্রস্তাবমতে আমাদের সভা থেকে কুমারত্ৰত তুলে দেবার জন্যেই আজ আমরা এখানে মিলিত হয়েছি। কিন্তু, শ্ৰীশবাবু এবং বিপিনবাৰু অত্যন্ত দৃঢ়প্রতিজ্ঞ, এখন ওঁদের বোঝাতে পারলেই— রসিক । ওঁদের বোঝাতে আমি ক্রটি করি নি চন্দ্রবাবু— চন্দ্রবাবু। আপনার মতো বাগ্মী যদি ফল না পেয়ে থাকেন তা হলে— রসিক । ফল যা পেয়েছি তা ফলেন পরিচয়তে । চন্দ্রবাবু। কী বলছেন ভালো বুঝতে পারছি নে। অক্ষয় । ওহে রসিকদা, চন্দ্রবাবুকে খুব স্পষ্ট করে বুঝিয়ে দেওয়া দরকার। আমি দুটি প্রত্যক্ষ প্রমাণ এখনই এনে উপস্থিত করছি।