পাতা:রামতনু লাহিড়ী ও তৎকালীন বঙ্গসমাজ.djvu/৩৫৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
২৯৬
রামতনু লাহিড়ী ও তৎকালীন বঙ্গসমাজ

হাইকোর্টের প্রসিদ্ধ উকীল স্বৰ্গীয় মহেশচন্দ্র চৌধুরী মহাশয়ের ভবনে বাস করিতেছিলেন। আমি দরিদ্র ব্রাহ্মণের সগুন, আমার সহরে থাকিবার স্থান ছিল না। আমার পিতার সহিত বন্ধুতা স্বত্ৰে। চৌধুরী মহাশয় আমাকে। আানিয়া, দয়া করিয়া নিজ ভবনে স্থান দিয়াছিলেন। কেবল স্থান দিয়া ছিলেন তাহা নহে, ভ্রাতৃ-নির্বিশেষে পালন করিয়াছিলেন। ডাক্তার। সরকার সেই ভবনের স্থান্ধী-চিকিৎসক ছিলেন। এল, এ পরীক্ষা কালে। •গুরুতর শ্ৰম করাতে আমার এক প্রকার পীড় জমে। বাসার লোকেরা আমাকে বলপূর্বক ধরিদ্ধা ডাক্তার সরকারের নিকট উপস্থিত করেন। বলেন আমাদের বাসাতে এই একটা বামনের ছেলে আছে, এল এ পরীক্ষHর জন্য গুরুতর আম করে এর কি অমুথ হয়েছে দেখুন, আপনাকে দয়া করে এর চিকিৎসার ভার নিতে হবে। ডাক্তার সরকার দয়া করিয়া আমার চিকিৎসার ভার লইলেন। বলিলেন,—"তোমার পীড়ার আনুপূর্বিক বিবরণ লিথে আমার কাছে পাঠিও r কিন্তু সে দিন আর এক ঘটনা ঘঠিল যাহাতে আমার মনটা খারাপ হইল। মহেশচন্দ্র চোধুরী মহাশয়ের কনিষ্ঠ ভ্রাতা গিরিশচন্দ্র চৌধুরী একজন সাধুপুরুষ ছিলেন। আমরা যুবকদল তাহাকে গুরুতুল্য ভক্তিশ্রদ্ধা করিতাম। কিন্তু তাহাঁর একটা স্বভাব এই ছিল যে তিনি সকল বিষয়ে অতিরিক্ত মাত্রায় অনুসন্ধিৎসু হইতেন। সে দিন ডাক্তার সরকার যথন ব্যবস্থা পত্র লিথিতেছেন, তখন তিনি পার্থে দাড়াইয়া জিজ্ঞাসা করিলেন “মশাই কি ঔষধ দিলেন?” ডাক্তার সরকার বিরক্ত হইয়া তাহার মুখের দিকে চাহিয়া জিজ্ঞাসা করিলেন, “আপনি কি মেডিকেল কালেজে পড়েছেন?'

গিরিশ বাবু না।

ডাক্তার সরকার—তবে এমন আহাম্কি করেন কেন? আমি কি ঔষধ দিচ্চি তাতে আপনার দরকার কি?

এই কণাগুলি এমন• রুক্ষভাবে বলিলেন যে আমাদের সালের প্রাণে। বড় আঘাত করিল। তারপর আমার রোগের আনুপূর্বিক বিবরণটা ইংরাজীতে লিথিয়া পাঠাইবার সময় তৎসঙ্গে বাঙ্গালাতে এক পত্র লিথিয়া পাঠাইলাম। তাহ৷ তাহার গিরিশবাবুর প্রতি পূীেক্ত ককশ। ব্যবহারের জন্য তিরস্কারে পূর্ণ ছিল। পাঠাইবার সমর মনে হইল না। যে নিজে ত গরীব ব্রাহ্মণের সস্তান, বাহার অনুগ্রহ প্রার্থী হইতে ঘাইতেছি, তাহাকেই তিরস্কার, এ কিরূপ ব্যবহায়। ঠিীখানি পাঠাইয়াই চিন্তা হইল।