পাতা:লক্ষণ সেন - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/২১২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


२०b~ লক্ষণ-সেন । AMMMAMMMA AMMMAMAMMMA AMAJAAMMAAMMAJJJJSJS স্তায় প্রভাতে এই সংবাদ সহরের সর্বত্র প্রচারিত হইয়া পড়িল। সঙ্গে সঙ্গে পাগলা-সন্ন্যাপীর অলৌকিক মাহায্যের কথাও । বিঘোষিত হইতে লাগিল । - সদরে সেই কথার আলোচনা, অন্দরে সেই কথার অালোচন, বৈঠকে সেই কথার আলোচনা, মজলিসে সেই কথার আলোচনা—হাটে, বাজারে, পথে, ঘাটে, সৰ্ব্বত্রই সেই কথার আলোচন।। . গঙ্গার ঘাটে স্ত্রী-মহলে আজ কেবল সেই আলোচনাই চলিয়াছে। কেহ কহিতেছেন—মহাপুরুষের কি অপার মহিমা! কেহ কহিতেছেন,—‘পাগলা-সন্ন্যাসী সত্যই মহাপুরুষ ! কেহ কহিতেছেন—‘পাগলা-সন্ন্যাসীর যে এতটা ক্ষমতা, তা যদি আগে জানতে পারতাম!’ । এক বর্ষীয়সী আপনার প্রতিবেশিনীকে ডাকিয়া কহিতেছেন,—“আশ্চৰ্য্য !—দিদি, আশ্চৰ্য্য! মর। মানুষ র্বাচিয়ে দিয়েছে।” প্রতিবেশিনী বলিতেছে,-“মহাপুরুষ অসাধ্য সাধন করিতে পারেন। তিনি বালিমুঠা ধরিলে টাকা-মুঠা হয় ! তিনি ফঁাসিকাঠ থেকে মানুষকে বাচিয়ে নিয়ে আসেন।” । বীয়সী।–“এ সব প্রত্যক্ষ ব্যাপার! অস্বীকার করিবার উপায় নাই ।” প্রতিবেশিনী।–“এমন মহাপুরুষকে চ'থের সাম্নে পেয়ে চিনতে পারি-নি!” । বর্ষীয়সী দীর্ঘনিশ্বাস পরিত্যাগ করিয়া কহিলেন,—“হায় ! আগে যদি চিনতে পারতাম !"