পাতা:লক্ষণ সেন - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/৩০৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ত্ৰিষষ্টিতম পরিচ্ছেদ । অনুতাপে । যথানির্দিষ্ট দিবসে বক্তিয়ার নবদ্বীপ-রাজধানীতে আগমন করিলেন। সাঙ্গোপাঙ্গ সহ তাহদের কুড়ি জনের মাত্র রাজ্যমধ্যে প্রবেশের অম্বুমতি ছিল, আর তিন দিন মাত্র তাহারা রাজধানীতে অবস্থিতির অনুমতি পাইয়াছিলেন। সাঙ্গোপাঙ্গগণের মধ্যে বক্তিয়ার সপ্তদশ জন সৈনিক পুরুষকে আপনার পাশ্বচর রূপে অনিয়াছিলেন এবং বিশ্বেশ্বর ও ত্রিলোচন তাহার সঙ্গে । পথ-প্রদর্শক-রূপে আসিয়াছিলেন। রাজধানীর উত্তর প্রান্তে বস্ত্রাবাস প্রস্তুত হইয়াছিল । সহচরগণ সহ বক্তিয়ার স৷ তথায় অভার্থিত হন । রাজপুরুষগণ যখন র্তাহাদিগকে অভ্যর্থনা করিয়া বস্ত্রাবাসে লইয়া যান, ত্রিলোচন তখন একখানি বজরার মধ্যে মুখ লুকাইয় ছিলেন। নবদ্বীপে মুখ দেখাইতে র্তাহার লজ্জা হইয়াছিল ; বক্তিয়ারও সাধরণের সমক্ষে তাহাকে বাহির করা সমীচীন মনে করেন নাই। নগরের প্রস্তু ভাগে, নদীগর্ভে এক খানি বজরার মধ্যে র্তাহাকে রাখিয়া অপরাপর সঙ্গিগণ সহ বক্তিয়ার রাজ-আতিথ্য গ্রহণ করেন। রাজবাটীর প্রাঙ্গণে র্তাহাদিগকে উপস্থিত হইতে দেওয়া হয় নাই। কিন্তু মহারাজ লক্ষ্মণেয়, রঘুদেব ও সংগ্রামসিংহ সমভিব্যাহারে, বক্তিয়ারের নিকট উপস্থিত হইয় তাহার ૨ ૭