পাতা:লক্ষণ সেন - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


१ লক্ষণ-সেন । আবাল-বৃদ্ধ-বনিত, পথের অশেষ কষ্ট সহ্ করিয়া, আজি এই পুণ্যক্ষেত্রে আসিয়া সমবেত হইয়াছে । তীরে তিল ধারণের স্থান নাই। অতি প্রত্যুব হইতে পিপীলিকার সারির ন্যায় দলে দলে নরনারী এই পুণ্যক্ষেত্রে অবগাহন করিতে আসিতে আরম্ভ করিয়াছেন ; মধ্যাহের প্রখরস্বর্য্যোত্তাপ মস্তকের উপর অধিবর্ষণ করিয়া চলিয়া গেল ; তথাপি সে জনস্রোতের বিরাম নাই। একে সৰ্ব্বপাপহর নবদ্বীপ; তাহার উপর বৈশাখী পূর্ণিমার শুভ-সংযোগ। সুতরাং দূর-দূরান্তর হইতে গ্রাম-গ্রামান্তর হইতে ভক্ত নরনারী আজি নবদ্বীপে গঙ্গাস্নানে আসিয়াছেন। কেহ আসিতেছেন, কেহ যাইতেছেন, কেহ স্নান করিতেছেন, কেহ পূজায় বসিয়া আছেন ; কেহ বা স্বর্গগত পিতৃ-পিতামহের তৃপ্তি-সাধনের উদ্দেশ্বে তৰ্পণ করিতেছেন ; কেহ স্বান-পূজা সমাপনান্তে গৃহপ্রত্যাবৃত্ত হইতেছেন। সকলেরই ব্যাকুলতা—সকলেরই ব্যগ্রভাব । আসা, যাওয়া, স্নান করা, পূজাহিক সারা এবং দানধ্যান প্রভৃতি লইয়াই সকলে বিব্রত। কিন্তু একটী লোক-সারাদিন ঘাটের এক প্রান্ত-ভাগে একই ভাবে বসিয়া বসিয়া—এ কি করিতেছে ! প্রাতঃকাল গত হইল, দ্বিপ্রহর আসিল । দ্বিপ্রহর অতীত্ত হইল, অপরাহ আসিল । আবার অপরাহ্নও চলিয়া যায়—সন্ধ্যা আসে আসে। সে কেন একই ভাবে বসিয়া একই খেলায় নিমগ্ন রহিয়াছে ! ঘাটে এত লোকের সমাগম হইয়াছে ; এত কোলাহল গণ্ডগোল চলিয়াছে ; এত শঙ্খ-ঘণ্ট। বাদ্মধ্বনি উঠিয়াছে; তৎপ্রক্তি তাহার ক্ৰক্ষেপ নাই। সে আপন মনে এ কি করিতেছে!