পাতা:লক্ষণ সেন - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/৯৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বিপ্লবে। సిరి মিথিলার সীমানায় নবদ্বীপাধিপতির সৈন্যদল পদার্পণ করিয়াছে—যে দিম এই সংবাদ রাজা জয়সিংহের নিকট উপস্থিত হইল, রাজা জয়সিংহ ক্রোধে অধীর হইয় পড়িলেন। সেই দিনই বনিগণের প্রাণ-সংহারের সঙ্কল্প ছিল । কিন্তু সংবাদ আসিতে দ্বিপ্রহর উত্তীর্ণ হওয়ায় সে দিন আর তাহা কার্য্যে পরিণত হইল না। পরদিন প্রভাতে বন্দিগণকে নিহত করা হইবে, ইহাই স্থির হইয়া রহিল। পূৰ্ব্বদেশ অনুসারে আরও তিন দিবস পরে বীরসিংহের প্রাণদণ্ডের কথা ছিল । কিন্তু তাহার পূৰ্ব্বেই মহারাজ লক্ষ্মণ-সেন সসৈন্তে মিথিলার সীমানায় উপনীত হওয়ায়, সে কয়েকদিন অপেক্ষ করাও রাজা জয়সিংহ আর সঙ্গত বলিয়া মনে করিলেন না। স্থির হইল। পরদিন প্রভাতে প্রথমে বীরসিংহের মস্তকচ্ছেদ হইবে । পরিশেষে, একে একে নবদ্বীপাধিপতির প্রতিনিধি প্রভৃতির প্রাণদণ্ড হইবে । ঐ দিন রাত্রে বীরসিংহের হস্তপদ কঠিন লৌহ-শৃঙ্খলে আবদ্ধ করা হইল, এবং তাহাকে কারাগারের এক নিভৃত কক্ষে রাখার ব্যবস্থা হইল । সন্ধ্যার প্রাক্কালে এই দণ্ডাদেশ প্রচারিত হয় । জহলাদগণ প্রত্যুষে সেই নৃশংস হত্যাকাণ্ড সংসাধনের জন্য প্রস্তুত হইয়। রহিল। বন্দী বীরসিংহ সন্ধ্যার পরই সেই সংবাদ প্রাপ্ত হইলেন । তিনি নিরস্ত্র ; কঠিন নিগড়ে আবদ্ধ। তাহার আত্মরক্ষার কোনই উপায় নাই। বীরসিংহ মরিবার জন্য প্রস্তত হইয়। রহিলেন । তবে তাহার মনে বড়ই ক্ষোভ রহিল,—তিনি