প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:লিপিকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/১৩০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


১১২ লিপিকা এক পদ গাইলেন । গান আর এগোয় না, বৃষ্টির ফোটায় ভেরে’-ওঠা জুই ফুলটির মত হাওয়ায় কাপতে কাপতে খসে পড়ে। শেষে তমুরাটি কুমার সেনের হাতে দিয়ে বললেন, “বৎস, এই লও আমার যন্ত্র।” তারপরে মাধবীর হাতখানি তার হাতে তুলে দিয়ে বললেন, “এই লও আমার প্রাণ ।” তার পরে বললেন, “আমার গানটি দুজনে মিলে শেষ করে দাও, আমি শুনি ।” মাধবী আর কুমার, গান ধরলে—সে যেন আকাশ আর পূর্ণচাদের কণ্ঠ মিলিয়া গাওয়া । এমন সময়ে দ্বারে এল রাজদূত, গান থেমে গেল। আচাৰ্য্য কাপতে কাপতে আসন থেকে উঠে জিজ্ঞাসা করলেন, “মহারাজের কি আদেশ ?” দূত বললে, “তোমার মেয়ের ভাগ্য প্রসন্ন, মহারাজ তাকে ডেকেচেন ।” আচাৰ্য্য জিজ্ঞাসা করলেন, “কি ইচ্ছা তার ?” দূত বললে, “আজ রাত পোয়ালে রাজকন্যা কাম্বোজে পতিগৃহে যাত্রা করবেন, মাধবী তার সঙ্গিনী হয়ে যাবে।”