পাতা:লিপিকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/১৫৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


शूडि S35 মেয়ে বললে, “যেতে পারব না, এইখানে যে আমার পুজে ।” একদিন রাত্রে ঘুমের মধ্যেও সে যেন শুনতে পেলে সমুদ্র গর্জনের মত শব্দ । দলে দলে দেশ-বিদেশের লোক চলেচে, কেউবা রথে কেউবা পায়ে হেঁটে-— কেউবা বোঝা পিঠে নিয়ে, কেউবা বোঝা ফেলে দিয়ে। সকালে যখন সে জেগে উঠল তখন যাত্রীর গানে পাখীর গান আর শোনা যায় না। ওর হঠাৎ মনে হ’ল আমাকেও যেতে হবে । অমনি মনে পড়ে গেল, “আমার যে পুজো আছে, আমার ত যাবার জো নেই।” তখনি ছুটে চল ল তার বাগানের দিকে যেখানে মূৰ্ত্তি সাজিয়ে রেখেচে । গিয়ে দেখে, মূৰ্ত্তি কোথায়। বেদীর উপর দিয়ে পথ হয়ে গেচে । লোকের পরে লোক চলে, বিশ্রাম নেই। এইখানে যাকে বসিয়ে রেখেছিলেম সে কোথায় ? কে তার মনের মধ্যে বলে উঠল, যারা চলেচে তাদেরই মধ্যে —