প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:লিপিকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/১৮১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


एंटीlis श्रम YWOO বট বললে, “তুমি এত সমারোহ কোথায় দেখলে ?” আমি বললেম, “তোমার লড়াইকে দেখি শাম্ভির রূপে, তোমার কৰ্ম্মকে দেখি বিশ্রামের বেশে, তোমার জয়কে দেখি নম্রতার মূৰ্ত্তিতে। সেই জন্তেই ত তোমার ছায়ায় সাধক এসে বসেচে ঐ সহজ যুদ্ধজয়ের মন্ত্র আর ঐ সহজ অধিকারের সন্ধিটি শেখ বার জন্তে । প্রাণ যে কেমন করে কাজ করে, অরণ্যে অরণ্যে তারি পাঠশালা খুলেচ। তাই যারা ক্লান্তু তারা তোমার হাস্থায় আসে, যারা আর্ত কারণ তোমার বাণী খোজে ।” আমার স্তব শুনে বটের ভিতরকার প্রাণপুরুষ বুৰি খুসি হ’ল, সে বলে উঠল, “আমি বেরিয়েচি মরুদৈত্যের সঙ্গে লড়াই করতে, কিন্তু আমার এক ছোট ভাই আছে, সে ষে কোন লড়াইয়ে কোথায় চলে গেল আমি তার আর নাগাল পাইনে। কিছুক্ষণ আগে তারই কথা কি তুমি বলছিলে ?” “হঁ্য, তাকেই আমরা নাম দিয়েচি, মন ।” “সে আমার চেয়ে চঞ্চল। কিছুতে তার সন্তোষ নেই। সেই অশান্তটার খবর আমাকে দিতে পার ?” আমি বললেম, “কিছু কিছু পারি বই কি। তুমি লড়চ বাচবার জন্তে, সে লড়চে পাবার জন্তে, আরো