প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (অষ্টম সম্ভার).djvu/২৮২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎ-সাহিত্য সংগ্ৰহ 尊 স্বলোচনা দীর্ঘনিশ্বাস ফেলিলেন, বলিলেন, স্থপত্রি অপাত্র ওর অদৃষ্ট গুণী । আমাদের কাজ আমরা করব, তার পরে ভগবানের হাত । সে ঠিক কথা মা, বলিয়া গুণী চলিয়া গেল । তাঁহার মুখের উপর দিয়া একটা কালে ছায়া ভাসিয়া গেল, স্থলোচনা তাহা লক্ষ্য করিয়া আর একটা দীর্ঘনিশ্বাস ফেলিয়া নিজের কাজে চলিয়া গেলেন । মনে মনে বলিলেন, না, ভাল হচ্ছে না—যত শীঘ্র পারা যায় পাত্রস্থ করা চাই । কয়েকদিন পরে হেম হঠাৎ ঘরে ঢুকিয়াই বলিল, এখনো শুয়ে আছ—কাপড় পরনি? শীগগির ওঠ । গুণী বিছানার উপর গুইয়া চুপ করিয়া চাহিয়া রছিল। হেম ভালুমারির কাছে গিয়া খটু করিয়া আলমারি খুলিয়া একমুঠা নোট ও টাকা লইয়া আঁচলে বাধিল । চাবি বন্ধ করিয়া কাছে আসিয়া ললিল, তোমার পায়ে পড়ি গুণীদা, আর দেরি করে না, ওঠ । দোকান বন্ধ হয়ে যাবে । গুণী তাহার সাজগোজ দেখিয়া কতকটা অনুমান করিয়াছিল, জিজ্ঞাসা করিল, কোথায় যেতে হবে ? হেম ব্যস্ত হইয়া বলিল, বেশ ! গাড়ি তৈরী করতে বলে দিয়েছি এক ঘণ্টা আগে । এখন—তুমি বলছ কোথায় যেতে হবে! গুণী বলিল, কোচম্যান না হয় জানতে পারে কোথাও যেতে হবে ; আমি ত কোচম্যান্‌ নই, জানব কি করে ? হেম হাসিয়া উঠিয়া বলিল, তুমি কোচম্যান কেন হবে গুণীদা ? চল, দোকান বন্ধ হয়ে যাবে। কোন দোকান ? বইয়ের দোকান গো ! তোমাকে মানদ বলে যায়নি ? আমি তাকে দিয়ে বলে পাঠিয়েছিলাম যে ! অনেক ভাল ভাল নূতন বাংলা বই বেরিয়েছে—আমি একটা লিটি করেচি । তাহার হাতে একটা কাগজের টুকরো দেখিয়া গুণী হাত বাড়াইয়া বলিল, লিটি দেখি । - না, তা হলে তুমি কিনতে দেবে না। তা বলে চুরি করে ফিনলেও পড়তে দেবে না। হেম ক্ষণকাল চুপ করিয়া থাকিয়া বলিল, আচ্ছা চল, গাড়িতে দেখাব। ২৭২