প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (একাদশ সম্ভার).djvu/১৮৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎ-সাহিত্য-সংগ্ৰহ দিবাকর জবাব দিল না। হতবুদ্ধির মত বসিয়া রছিল। - - কিরণময়ী উপেন্দ্রর নির্বাক মুখের দিকে চাহিয়া বলিল, তোমার কি মত ঠাকুরপো ? . উপেন্দ্র শুধু একটুখানি হাসিল, কিছুই বলিল না ! দিবাকর নিজেকে সামলাইয়া লইয়া বলিল, কিন্তু এটা রূপক হতেও পারে । কিরণময়ী কহিল, তা পারে । কিন্তু রূপক ত সত্য ঘটনা নয়। ঐ বইখানি যে জাগাগোড়াই মিথ্যা, তা না হতে পারে , আগাগোড়া ৰে সত্য নয় সে-কথা বুদ্ধির তারতম্য হিসেবে বেছে নিতে হবে না ? তাই, তোমার বুদ্ধিতে যদি বার আন সত্য বলে টেকে, আমার বুদ্ধিতে হয়ত পনের জানা মিথ্যে বলে মনে হতে পারে। তাতেও ত আমার অন্যায় হবে না ঠাকুরপে। । , দিবাকর হাতের বইখানির প্রতি নীরবে চাহিয়া রহিল। কিরণময়ীর কথাগুলো তাহার বুকে বেদনার মত বাজিতে লাগিল। খানিক চুপ করিয়া থাকিয়া কহিল, বোঁদি, যাকে আপনি মিথ্যে ঘটনা বলচেন, তার হয়ত কোন গৃঢ় অভিসন্ধি থাকতে, পারে, তাই— তাই মিথ্যার অবতারণা ? তুমি যা আন্দাজ করচ তা হতে পারে, আমি মেনে নিচ্চি। তবুও সেটা আন্দাজ ছাড়া আর কিছু নয়, আর অভিসন্ধি যাই থাক, পথটা সাধু পথ নয়। এই কথাটা সব সময়ে মনে রাখা উচিত যে, মিথ্যে দিয়ে ভুলিয়ে সত্য প্রচার হয় না। সত্যকে সত্যের মত করেই বলতে হয়। তবেই মানুষ যে যার বুদ্ধির পরিমাণ বুঝতে পারে। আজ না পারে ত কাল পারে। সে না পারে ত আর একজন পারে। না-ও যদি পারে, তবুও তাকে মিথ্যার ভূমিকা দিয়ে মুখরোচক कब्रांब cछडेब्र प्रउ चकांग्र बांग्र cनई। #ांडूबईन, शिषा नान, किरू बिषrांग्र गण्डा জড়িয়ে বলার মত পাপ সংসারে অল্পই আছে। - Կ দিবাকর মিৰ মলিন-খে চুপ কুরিয়া ছিল। কিরণক্ষী তাহার মুখ মেৰিয়া মনের ভাব স্পষ্ট বুঝিতে পারিল। কোমলম্বরে কহিল, এতে দুঃখিত হবার ত কিছু নেই ঠাকুরপো! যা সত্য, তাকেই সকল সময় সকল অবস্থায় গ্রহণ করবার চেষ্টা করবে। তাতে বেই মিথ্যা হোক, আর শাস্ত্রই মিথ্যে হয়ে যাক। সত্যের চেয়ে এরা বড় নয়, সত্যের তুলনায় এদের কোন মূল্য নেই। জিদের বশে হোক, মমতায় হোক, স্বীর্ঘ দিনের সংস্কারে হোক, চোখ বুজে অসত্যকে সত্য বলে বিশ্বাস করার কিছুমাত্র পেক্ষ নেই। একটুখানি চুপ করিয়া কছিল, তাই বলে এমন কথাও মনে ভেবে না যে, আমি জগত্য বলে বুঝেটি বলেই তা জগত্য হয়ে গেছে। चावाद :बाई रूषहै। ७३ cर, गडा विश। शारे ८शक, उहरू बूदि{{ ह अरण कई, Yፃና