প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (একাদশ সম্ভার).djvu/১৯৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎ-সাহিত্য-সংগ্ৰহ কণ্ঠস্বর, চোখের চাহনি, সমস্ত মুখখানি, এমন কি সৰ্ব্বাঙ্গ হইতে সংশয়-লেশহীন দৃঢ় প্রত্যয় যেন ফুটিয়া পড়িতেছে। এই বিপুল বিরাট গ্রন্থখানি তাহার কাছে প্রত্যক্ষ-সত্য। এ ত কৌতুক নয়, এ যেন জীবন্ত বিশ্বাস । তাহার পর কিছুক্ষণের জন্ত কে কি বলিতে লাগিল, সেদিকে তাহার চেতনা রহিল না । কেমন যেন আচ্ছল্পের মত এই স্বরবালার মধ্যে একটা অপরিচিত ভাবের আকৃতি দেখিতে লাগিল । তাহা অদৃষ্টপূৰ্ব্ব । : কিন্তু, এরুপ কতক্ষণ থাকিত বলা যায় না, সহসা সে উপেন্দ্র ও লরোজিনীর সমবেত উচ্চ হাসির শব্দে আপনাতে আপনি ফিরিয়া আসিল। দেখিতে পাইল, হাসির ছটায় স্বরবালা বিব্রত হইয়া পড়িয়াছে । সে বেচারা এক । তাই সে কিরণময়ীকে হঠাৎ মধ্যস্থ মানিয়া ক্ষুব্ধস্বরে কহিল, আচ্ছা দিদি, এ কি মিথ্যে কখনও হতে পারে। - - উপেন্দ্র কিরণময়ীর প্রতি চাহিয়া হাসি দমন করিয়া কহিল, বৌঠান, তর্কট এই, সরোজিনী বলচেন, ভীষ্মের শরশষ্যার সময় অর্জুন যে বাণ দিয়ে পৃথিবী বিদীর্ণ করে গঙ্গাএনেছিলেন, সে মিথ্যে কথা। কখনো আনেননি। স্বরবালা স্বামীর মুখের প্রতি তীব্র দৃষ্টিপাত করিয়া কহিল, আনেননি, তৰে শোন বলি। ভীষ্মদেব শরশয্যায় শুয়ে জল খেতে চাইলেন। দুৰ্য্যোধন স্থবৰ্ণ-ভৃঙ্গারে জঙ্গ আনলে তিনি খেলেন না। এ ত আর মিথ্যে নয় । গঙ্গা যদি না এলেন, তবে তার সরোজিনী অসহিষ্ণু হইয়া কহিল, কিসে ! যদি ৰলি পিপাসা মিটল তার সেই ভৃঙ্গারের জলে । তিনি দুৰ্য্যোধনের সেই ভৃঙ্গারের জলই খেয়েছিলেন । । : . . এবার স্বরবাল ভয়ানক উত্তেজিত ও রুষ্ট হইয়া কহিল, তবে লেখা আছে কেন খাননি? আর তাই যদি তিনি ভৃঙ্গারের জলই খাবেন, তা হলে অৰ্জ্জুনের মত কষ্ট: করে বাণ দিয়ে পৃথিবী বিদীর্ণ করে গঙ্গা আনবার কি দরকার হয়েছিল, তরল ? দিদি, তুমিই বল, এ ত আর কিছুতেই মিথ্যে হতে পারে না ? বলিয়া সে কুদ্ধ অথচ করশ দুই চক্ষুর দ্বারা কিরণময়ীকে আবেদন জানাইল। মুহূর্বমধ্যে উপেন্দ্রর উচ্চহাস্তে ঘর ভরিয়া গেল। সরোজিনীও খিলখিল করিয়া হাসিয়া উঠিল : , উপেক্স কছিল, নিন বৌঠান, জবাব দিন। গঙ্গা যদি না এলেন, তবে পিপাসা, মিটল কিসে? আর পিপাসা যখন মিটল ; তখন গঙ্গল আসবেন না কেন? রলিয়।A কিন্তু আশ্চর্য! কিরণময়ী এই হালিতে যোগ দিতে পারিল না । সে ৰিম্বয়- “ DBB DDBB BBBBB BBBB BBB BD DD DBB S BBBB BBBBS ›tyፀ: