প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (ত্রয়োদশ সম্ভার).djvu/২১২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


RN9 হাত-মুখ ধুইয়া আসিয়া ডাক্তার তাহার বেঁচেকার উপরে চাপিয়া বসিলেন। পূৰ্ব্বোক্ত ছেলেটি মস্ত মোটা একটা বৰ্ম্মী সিগার টানিতে টানিতে ঘরে ঢুকিল এবং কয়েক মুহূৰ্ত্ত ধরিয়া নাক-মুখ দিয়া অপৰ্যাপ্ত ধুম উদগীরণ করিয়া চুরুটটি ডাক্তারের হাতে দিয়া প্রস্থান করিল। ভারতীর মুখে বিশ্বরের চিহ্ন অনুভব করিয়া ডাক্তার সহাস্তে কহিলেন, অমনি পেলে আমি সংসারে কিছুই বাদ দিতে ভালবাসিনে ভারতী । অপূৰ্ব্বর কাকাবাবু আমাকে যখন রেঙ্গনের জেটিতে প্রথম গ্রেপ্তার করেন, তখন পকেট থেকে আমার গাঙ্গার কলকে বার হয়ে পড়েছিল। নইলে, বোধ হয় ছুটি পেতাম না। এই বলিয়া তিনি মৃদু মৃদু হাসিতে লাগিলেন । ভারতী এ ঘটনা শুনিয়াছিল, কহিল, সে আমি জানি এবং হাজার ছুটি পেলেও যে ওটা তুমি খাও না তা-ও জানি। কিন্তু এ বাড়িটি কার দাদা ? আমার। আর এই বৰ্ম্মী মেয়েটি এবং শিশুগুলি ? ডাক্তার হাসিয়া ফেলিয়া কহিলেন, না ওঁরা আমার একটি মুসলমান বন্ধুর সম্পত্তি। , অামারি মত ফাসি-কাঠের আসামী, কিন্তু সে অন্ত বাবদে । সম্প্রতি স্থানাস্তরে গেছেন, পরিচয় ঘটবার সুযোগ হবে না। ভারতী কহিল, পরিচয়ের জন্য আমি ব্যাকুল নই ; কিন্তু সৰ্ব্বদিক থেকে তুমি ষে স্বৰ্গপুরীতে এসে আশ্রয় নিয়েচ, তার থেকে আমাকে বাসায় রেখে এসো দাদা, এখানে আমার দম বন্ধ হয়ে আসচে । ডাক্তার হাসিমূখে জবাব দিলেন, এ স্বৰ্গপুরী যে তোমার সইবে না, সে তোমাকে আনবার পূৰ্ব্বেই আমি জানতাম। কিন্তু তোমাকে বলবার আমার যত কথা ছিল, সে তো এই স্বৰ্গপুরী ছাড়া প্রকাশ করবারও আর দ্বিতীয় স্থান নেই ভারতী। আজ তোমাকে একটুখানি কষ্ট পেতেই হবে। ভারতী জিজ্ঞাসা করিল, তুমি কি শীঘ্রই আর কোথাও স্বাবে ? ডাক্তার কহিলেন, হ্যা। উত্তর এবং পূর্বের দেশগুলো আর একবার ঘুরে আসতে হবে। ফিরতে হয় ত বছর দুই লাগবে। কিন্তু আজ তুমি নানারকমে এত ব্যথা পেয়েচ বোন, ষে সকল কথা বলতে আমার লজ্জা হয়। কিন্তু আজকের রাত্রির পরে আর ষে সহজে তোমাকে দেখা দিতে পারবো সে ভরসাও করিনে । रै *१