প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (ত্রয়োদশ সম্ভার).djvu/৩৩১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


छांजभव्छ যাচ্ছি মা । চলো না বাবা । नाटलंब्र घtद्ध श्धिार७ कबिउ ब्रफ़नाग्न इउ हिल । चाहे. ७. नईौचगंग्र छूठोब्र DBBB BBBB BBDS DDD DDDBS BD BBDSDBDD DDDD BHH DDS আর কোন কাগজওয়াল নেয় না। 'বাতায়ন সম্পাদক উৎসাহ দিয়ে চিঠি লেখেন, “হিমাংশুবাৰু, আপনার কবিতাটি চমৎকার হয়েছে । আগামী বারে আর একটা পাঠাবেন একটু ছোট করে। এবং ঐ সঙ্গে শাশ্বতী দেবীর একটি রচনা অতি অবগু পাঠাবেন " জানিনে বাতায়ন সম্পাদক সত্যি বলেন, না ঠাট্টা করেন । কিংবা তার আর কোন উদ্বেগু আছে। শাশ্বতী দেখে হাসে—বলে, দাদা, এ চিঠি বন্ধু মহলে আর দেখিয়ে বেড়িও না । কেন বলতে ? ন, এমনিই বলুচি। নিজের প্রশংসা নিজের হাতে প্রচার করে বেড়ানো কি ভালো ? কবিতা পাঠানোর আগে সে বোনকে পড়ানোর ছলে স্কুল-চুকগুলো সব শুধরে নেয়। সংশোধনের মাত্রা কিছু বেশি হয়ে পড়লে লজ্জিত হয়ে বলে, তোর মত আমি ত আর বাবার কাছে সংস্কৃত ব্যাকরণ, কাব্য, সাহিত্য পড়িনি, আমার দোষ কি ? কিন্তু জানিস শাশ্বতী, আসলে এ কিছুই নয় ? দশটাক মাইনে দিয়ে একটা পণ্ডিত রাখলেই কাজ চলে যায়। কিন্তু কবিতার সত্যিকার প্রাণ হ’লো কল্পনায়, আইডিয়ায়, তার প্রকাশ-ভঙ্গীতে। সেখানে তোর কলাপ মুগ্ধবোধের বাপের সাধ্যি নেই যে দাত ফোটায়। সে সত্যি দাদা । হিমাংশুর কলমের ডগায় একটা চমৎকার মিল এসে পড়েছিল, কিন্তু মায়ের তীব্র কণ্ঠ হঠাৎ সমস্ত ছত্রভঙ্গ করে দিল । কলম রেখে পাশের দোর ঠেলে সে এ-স্বরে ঢুকতেই মা চেচিয়ে উঠলেন, জানিস হিমাংগু, আমাদের কি সৰ্ব্বনাশ হ’লে ? উনি চাকুরি ছেড়ে দিলেন,– নইলে মন্থন্তত্ব চলে যাচ্ছিল। কেন ? কেননা কোথাকার কে-একজন ওঁর বদলে সব-জজ হয়েছে, উনি নিজে হতে পারেন নি। আমি স্পষ্ট বলচি, এ হিংসে ছাড়া আর কিছুই নয় । নিছক হিংসে । হিমাংশু চোখ কপালে তুলে বললে, তুমি বলে কি মা ! চাকরি ছেড়ে দিলেন ? হোয়াটু ননসেন্স ! অবিনাশের মুখ পাণ্ড হয়ে গেল, তিনি দাত দিয়ে ঠোঁট চেপে স্থির হয়ে রইলেন। আসন্ন সন্ধ্যার মান ছায়ায় তার সমভ চেহারাটা যেন কি একপ্রকার অদ্ভূত দেখালো। VV 9