প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দ্বাদশ সম্ভার).djvu/২১১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


Cत्रएदङ्ग क्लिङ्ग ভার মানে ? আপনি কি বলতে চান এই বন্ধলে— বিমলবাবুর বাক্য সমাপ্ত হইবার পূৰ্ব্বেই ব্ৰজবাৰু হাসিয়া উঠিলেন। বলিলেন, আপনি সত্যিই হাসালেন কিন্তু বিমলৰাৰু। কেন বলুন তো ? আপনার বিয়ের আর বয়স নেই, এ-রকম একটা অসম্ভব ধারণা কি করে ছ’লে ? ভা হলে আমরা তো— কিন্তু আপনার বেশী বয়সে বিবাহের অভিজ্ঞতা যে একবারও সুখের হয়নি এও তো সত্য | আপনি ভাগ্য মানেন কি ? কতকটা মানি বৈ কি। তবে অন্ধ অদৃষ্টবাদী নই। জন্ম-মৃত্যু-বিবাহ এই তিনটে ব্যাপার যে সম্পূর্ণ ভাগ্যের পরে নির্ভর করে এটা স্বীকার করেন কি ? না। এ যুগে বিজ্ঞানের সাহায্যে জন্ম ও মৃত্যুকে সম্পূর্ণ না হলেও কতকটা ইচ্ছানিয়ন্ত্রিত করতে পেরেচে মানুষ, যদিও জন্ম-মৃত্যু ব্যাপারটা একেবারেই প্রকৃতির নিয়ম। জীবমাত্রেই প্রকৃতির নিয়মের অধীন। সুতরাং ও-ছুটে বাদ দিয়ে বিবাছটাই ধরুন। ওটা সামাজিক সুবিধার জন্ত মানুষের গড়া নিয়ম। কাজেই ও ব্যাপারটায় অদৃষ্টের বিশেষ হাত নেই। মামুষের ইচ্ছাই এক্ষেত্রে প্রধান। এ-সকল যুক্তিতর্ক ব্ৰজবাবুর হয়তো ভাল লাগিতেছিল না। সুতরাং তিনি এ আলোচনায় আর যোগ না দিয়া নীরবে চক্ষু মুদিয়া ডেক-চেম্বারে পড়িয়া রছিলেন। বিমলবাবুও হস্তস্থিত সংবাদপত্রে মনোনিবেশ করিলেন । সন্ধ্যা ঘনাইয়া উঠিতেছিল, সংবাদপত্রের অক্ষরগুলি ক্রমশঃই অস্পষ্ট হইয়া উঠিতেছে। বিমলবাবু দুই একবার মুখ তুলিয়া তাকাইয়া দেখিলেন আলো জালা হইয়াছে কিনা। অৰ্দ্ধশায়িত ব্ৰজবাৰু যুঞ্জিত-নয়নে কি ভাবিতেছিলেন কে জানে। হঠাৎ সোজা হইয়া উঠিয়া বসিয়া ডান হাত বাড়াইয়া বিমলবাবুর একখানি হাত চাপিয়া ধরিলেন। ব্যগ্ৰকণ্ঠে কছিলেন, বিমলবাবু, তা হলে আপনি সত্যই বিশ্বাস করেন, বিবাহ নিয়তির অধীন নয়, মানুষের ইচ্ছার অনুগত ? বিমলবাবু অত্যন্ত বিস্থিত হইয়া বলিলেন, ই, আমার নিজের বিশ্বাস তাই বটে। কিন্তু আপনি হঠাৎ এ নিয়ে এত চঞ্চল হয়ে উঠলেন কেন ব্ৰজবাৰু ? বলচি । কিন্তু তার আগে আপনি কথা দিন আমার অনুরোধ রক্ষা করবেন ? না-না, অনুরোধ নয় প্রার্থনা, এ আমার ভিক্ষা। ব্ৰজবাৰু ব্যাকুল হইয়া বিমলবাবুর ছুটি হাত চাপিয়া ধরিলেন। ९** ֆՎաաՖԳ