প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দ্বাদশ সম্ভার).djvu/২৬৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শেষের পরিচয় এত ব্রতই বা আসে কোথা থেকে ? পাজিগুলো পুড়িয়ে না ফেললে জায় স্থক্ষে নেই দেখচি । আমি জানি দেব তা, আজ মায়ের কিসের উপোল । কিসের বলে তো ? আজ তার মেয়ের জন্মতিথি। তাই নাকি ? তোমার নতুন-মা বলেছেন বুঝি ? পাগল হয়েচেন ! সেই মাকুযই বটে ! অনেকদিন আগে মাকে বলতে শুনেছিলাম মাঘী পঞ্চমী রেণুর জন্মতিথি। রাখাল হাসিয়া বলিল, সুতরাং এদিনে নতুন-মার উপবাস অনিবাৰ্য্য! সারদা বলিল, হ্যা। শুধু তাই নয়—লক্ষ্য করে দেখেচি, এই দিনটিতে মা গরীব দুঃখীদের প্রচুর দান করেন। টাকা-পয়সা, নতুন কাপড়, কম্বল, আলোয়ান, এ-সব তো দেনই, তা ছাড়া পছন্দসই স্বন্দর স্বন্দর রঙীন শাড়ি, ডুরে শাড়ি, রাউজ, সেমিজ এই-সব কিনে ভিখারী মেয়েদের বিলিয়ে দেন। বাড়ি থেকে এ-সব কিছু করেন না, অন্য কোথাও গিয়ে দিয়ে আসেন। যেমন কালীঘাট, দক্ষিণেশ্বর কিংবা গঙ্গার ঘাট এই রকম কোথাও । রাখাল কিছু বলিল না। গম্ভীর-মুখে কি যেন চিন্তা করিতে লাগিল । সারদা বলিল, শুনেচেন কি, মা যে কলকাতার বাসা উঠিয়ে দিয়ে চিরদিনের জন্ত অন্যত্র চলে যাচ্চেন ? রাখাল মুখ তুলিয়া বলিল, কোথায় যাচ্চেন ? সারদা বলিল, আপাততঃ তীর্থভ্রমণে । তার পরে যে কোনও দেশে হোক থাকবেন । t রাখাল প্রশ্ন করিল, কবে যাবেন ? সারদা বলিল, তারকবাবুর বিয়েট চুকে গেলেই। রাখাল আশ্চর্য্য হইয়া বলিল, তারকের বিয়ে নাকি ? কোথায় ? সারদা সবিস্তারে তারকের বিবাহ-সংবাদ রাখালকে জানাইল । রাখাল বলিল, তারক ঘরজামাই থাকতে রাজী হ’লো ? বছর-দুই মাত্র। তার পর শিববাবু ওকে আলাদা একখানি বাড়ি দিয়ে পৃথক সংসার করে দেবেন কথা দিয়েচেন । রাখাল হাসিয়া বলিল, তা হলে তারক শুধু এক রাজকপ্তাই নয়, অর্ধেক ৰাজত্বস্বদ্ধ পাচ্ছে বলে ? . সারদা পরিহাসের স্বরে বলিল, শুনে আপনার নিশ্চয়ই আপশোষ হচ্চে-না দেবতা ? • *