প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দ্বাদশ সম্ভার).djvu/৩২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎ-সাহিত্য-সংগ্ৰহ তবে বিষয়-আশয়, কারবার, ঘর-সংসার দেখে কে ? কারবার দেখেন মামা, আর সংসার দেখেন তার মা- অর্থাৎ শাশুড়ী ! কিন্তু আমাকে জিজ্ঞাসা করে লাভ কি বলুন, কিছুই আপনার অজানা নয়। একটু থামিয়া বলিল, আমরা আজও যাবো সত্যি, কিন্তু তার নিশ্চিত পরিণামও আপনার জানা নতুন-মা । নতুন-মা চুপ করিয়া রছিলেন, শুধু মুখ দিয়া একটা চাপা দীর্ঘনিশ্বাস পড়িল। বোধ হয় নিরুপায়ের শেষ মিনতি। হঠাৎ শোনা গেল বাহিরে কে যেন জিজ্ঞাসা করিতেছে, ওহে ছেলে, এইটি রাজু বাবুর ঘর ? বালক-কণ্ঠে জবাব হইল, না মশাই, রাখালবাবুর বাসা । ই ই, তাকেই খুজচি। এই বলিয়া এক প্রৌঢ় ভদ্রলোক দ্বার ঠেলিয়া ভিতরে মুখ বাড়াইয়া বলিলেন, রাজু আছে ? বাঃ-এই তো হে। রাখালের প্রতি চোখ পড়িতেই সরল স্নিগ্ধ-হাস্তে গৃহের মাঝখানে আসিয়া দাড়াইলেন, বলিলেন, ভেবেছিলুম বুঝি খুঁজেই পাবে না। বাঃ–দিব্যি ঘরটি তো! হঠাৎ শেলফের ঈষৎ অন্তরালবর্তিনী মহিলাটির প্রতি দৃষ্টি পড়ায় একটু বিব্রত বোধ করিলেন, পিছু হাটিয়া দ্বারের কাছে আসিয়া কিন্তু স্থির হইয়া দাড়াইলেন। কয়েক মুহূৰ্ত্ত নিরীক্ষণ করার পরে বলিলেন, নতুন-বোঁ না ? বলিয়াই ঘাড় ফিরাইয়া তিনি রাখালের প্রতি চাহিলেন । একটা কঠিনতম অবমাননার মর্শ্বস্তুদ দৃপ্ত বিদ্যুদ্বেগে রাখালের মানসচক্ষে ভাসিয়া উঠিয়া মুখ তাহার মড়ার মত ফ্যাকাশে হইয়া গেল। তারক ব্যাপারটা আন্দাজ করিয়াও করিতে পারিল না, তথাপি অজানা ভয়ে সে-ও হতবুদ্ধি হইয়া রহিল। ভদ্রলোক পৰ্যায়ক্রমে সকলের প্রতি দৃষ্টিপাত করিয়া হাসিয়া ফেলিলেন—তোমরা করছিলে কি ? ষড়যন্ত্র ? গুলির আড্ডায় কনেস্টবল ঢুকে পড়লেও ত তারা এতে আঁৎকে ওঠেন না। হয়েছে কি ? নতুন-বোঁ তো ? মহিলা চৌকি ছাড়িয়া দূর হইতে ভূমিষ্ঠ প্ৰণাম করিয়া একধারে সরিয়া দাড়াইলেন, বলিলেন, ই, আমি নতুন-বোঁ । বোসে, বোসে। ভালো আছো ? বলিয়া তিনি নিজেই অগ্রসর হইয়া চৌকি টানিয়া উপবেশন করিলেন ; বলিলেন, নতুন-বোঁ, আমার রাজুর মুখের পানে এক বার চেয়ে দেখে। ও বোধহয় ভাবলে আমি চিনতে পারামাত্র তোমাকে যুদ্ধে জাহান করে ঘোরতর সংগ্রাম বাধিয়ে দেবো। ওর ঘরের জিনিসপত্র আর থাকবে না, ভেঙে তচনচ হয়ে যাবে। তাহার বলার ভঙ্গিতে শুধু কেবল তারক ও রাখাল নয়, নতুন-মা পৰ্য্যস্ত মুখ २२.