প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (পঞ্চম সম্ভার).djvu/২৭৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎ-সাহিত্য-সংগ্ৰহ চল, বলিয়া ইন্দু অলক্ষ্যে চোখের জল মুছিয়া ফেলিয়া তাহার কাছে আসিয়া #ांछांझेल । চা খাওয়া শেষ হইলে, বিমল কি জানি ইচ্ছা করিয়া আঘাত দিল কি না— কহিল, সে এক হাসির কথা বে। এক বাড়িতে দুই রোগী, কিন্তু দুজনের কি আশ্চৰ্য্য ভিন্ন ব্যবস্থা! দাদা মর মর হয়েও তোমাকে খবর দিতে দিলেন না ; পাছে বাস্ত হও–পাছে তোমার শরীর থারাপ হয়—আর অম্বিকাবাবু একদণ্ড ওর স্ত্রীকে স্বমুখ থেকে নড়তে দিলেন না। র্তার ভয়, চোখের স্বমুখ থেকে গেলেই তার প্রাণট বেরিয়ে যাবে। এমন কি, সে ছাড়া তিনি কারও হাতে বিশ্বাস করে ওষুধ খেতেন না—এমন কখনও শুনেচ বে। আমাদের একে তোমরা সবাই তামাশা কর, কিন্তু অম্বিকাবাবুর সকলকে ডিঙিয়ে গেছেন ; পেটে খেটে এই মেয়েটির ঠিক মড়ার মত আক্লতি হয়েচে । ছ, বলিয়। ইন্দু উঠিয় দাড়াইল । কহিল, আর একদিন এসে তোমার সতীসাধ্বী বৌটির সঙ্গে আলাপ করে যাব—আজ গাড়ি এসেচে, চললুম। তা হলে কাল একবার এস। আলাপ করে বাস্তবিক সুখী হবে। দেখা যাবে যদি কিছু শিখতে পারি, বলিয়া ইন্দু মুখ ভার করিয়া গাড়িতে গিয়া উঠিল। অম্বিকাবাবুর পাগলামি তাহার মনের মধ্যে আজ সমস্ত পথটা তাহার স্বামীর গভীর মঙ্গলেচ্ছার গায়ে ধূলা ছিটাইয়া লজ্জা দিতে দিতে চলিল। & দিন-দুই পরে কথায় কথায় ইন্দু অত্যন্ত বিরক্ত হইয়া বলিয়া উঠিল, যদি সত্যি কথা শুনলে রাগ না কর, তা হলে বলি ঠাকুরবি, বিয়ে করা তোমার দাদারও উচিত হয়নি, এই অম্বিকাবাবুরও হয়নি । বিমলা জিজ্ঞাসা করিল, কেন ? কারণ, প্রতিপালন করবার ক্ষমতা না থাকলে, এটা মহাপাপ। উত্তর শুনিয়া বিমলা মৰ্ম্মাহত হইল। ইন্দুকে সে ভালবাসিত। খানিক পরে কহিল, অম্বিকাবাবুর অন্যায় থাকতে পারে, কিন্তু তাই বলে তার স্ত্রী নিজের কর্তব্য করবে না ? তাকে ত মরণ পর্য্যন্ত স্বামি-সেবা করতে হবে ? কেন হবে ? তিনি অন্যায় করবেন, যাতে অধিকার নেই তাই করবেন—তার ফলভোগ করবে। আমরা? তুমি ইংরিজি পড়নি, আর পাঁচট। সভা-সমাজের খবর