প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (প্রথম সম্ভার).djvu/১২৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ক্রীকান্ত পিয়ারী কহিল, কিন্তু আমার ছেলে প্রায়ই আজকাল বঁকিপুর থেকে আসচে। বেশীদিন থাকূলে সে হয়ত কিছু ভাবতে পারে। আমি বলিলাম, ভাবলেই বা । তাকে ত তোমার ভয় ক’রে চলতে হয় না। এমন আরাম ছেড়ে শীঘ্ৰ কোথাও আমি নড়ছি নে । পিয়ারী বিরস-মুখে বলিল, তা কি হয় ! পরদিন বিকালবেলায় আমার ঘরের পশ্চিম দিকের বারান্দায় একটা ইজিচেয়ারে শুইয়া সূৰ্য্যাস্ত দেখিতেছিলাম, বন্ধু আসিয়া উপস্থিত হইল। এতদিন তাহার সহিত ভাল করিয়া আলাপ করিবার সুযোগ হয় নাই। একটা চেয়ারে বসিতে ইঙ্গিত করিয়া বলিলাম, বন্ধু, কি পড় তুমি ? ছেলেটি অতিশয় সাদা-সিধা ভালমানুষ। কহিল, গতবৎসর আমি এন্টাস পাশ করেছি। এখন তা হলে বাকিপুর কলেজে পড়চ ত ? আজ্ঞে হ্যা । তোমরা ক’টি ভাই-বোন ? ভাই আর নেই। চারটি বোন । তাদের বিয়ে হ’য়ে গেছে ? অজ্ঞে হঁ্যা। মা-ই বিয়ে দিয়েছেন । তোমার আপনার মা বেঁচে আছে ? আজ্ঞে ই, তিনি দেশের বাড়িতেই আছেন। তোমার এ মা কখনো তোমাদের দেশের বাড়িতে গেছেন ? অনেকবার । এই ত পাচ-ছ’মাস হ’ল এসেছেন। সেজন্ত দেশে কোন গোলযোগ হয় না । বন্ধু একটু চুপ করিয়া থাকিয়া কহিল, হলোই বা। আমাদের একঘরে করে রেখেচে বলে ত আর আমি আপনার মাকে ত্যাগ করতে পারি নে। আর অমন মা-ই বা ক’জনের অাছে ! মুখে আসিল জিজ্ঞাসা করি, মায়ের উপর এত ভক্তি আসিল কিরূপে । কিন্তু চাপিয়া গেলাম । বন্ধু কহিতে লাগিল, আচ্ছ আপনিই বলুন, গান-বাজনা করতে কি কোন দোষ আছে ? আমার মা শুধু তাই করেন। পরনিন্দে পরচর্চা ত করেন না ? বরঞ্চ গ্রামে আমাদের যারা পরম শক্র, তাদেরই আট-দশজন ছেলের পড়ার খরচ দেন ; শীতকালে কত লোককে কাপড় দেন, কম্বল দেন । এ কি মন্দ কাজ করেন ? 》를 مة لإسماة لا