পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (প্রথম সম্ভার).djvu/১৬৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বড়দিদি অবসর বুঝিয়া ম্যানেজারবাবু যেরূপ কাজ করিতেছিলেন, তাহাতে গ্রামে গ্রামে fদ্বগুণ হাহাকার উঠিল। শান্তি মাঝে মাঝে শুনিতে পাইত, কিন্তু স্বামীকে জানাইতে সাহস করিত না । অষ্টম পরিচ্ছেদ কলিকাতার বাটীতে ব্ৰজবাবুর স্তানে শিবচন্দ্র এখন কর্ত। মাধপাঁর পরিবর্তে নূতন বধু এখন গৃহিণী । মাধবী এখনও এখানে আছে । তাই শিবচন্দ্র স্নেহ-যত্ন করে, কিন্তু মাধবীর এখানে থাকিতে আর মন না ; বাড়ির দাস-দাসী, সরকারগোমস্তা এখনে "বড়দিদি বলে, কিন্তু সবাই বুঝে যে, আর একজনের হাতে এখন সিন্দুকের চাবি পড়িয়াছে । তাই বলিয়া শিবচন্দ্রের স্ত্রী যে মাধবীকে অবজ্ঞ বা অমৰ্য্যাদ। করে তাহা নহে, কিন্তু সে এমন ভাবটি দেখাইয়। যায়, তাহাতে বেশ বুঝিতে পারে যে, এই নূতন স্ত্রীলোকটির অনুমতি পরামর্শ ব্যতীত সব কাজ করা এখন আর তাহার মানায় ন} { | - তখন বাপের আমল ছিল, এখন ভাইয়ের আমল হইয়াছে। কাজেই একটু প্রভেদ ঘটিয়াছে। আগে অল্পে ছিল, আবদার ছিল—এখন আদর আছে, কিন্তু আবদার নাই। বাপের আদরে সে সৰ্ব্বময়ী ছিল, এখন আত্মীয়-কুটুম্বের দলে পড়িয়াছে । এখন যদি কেহ বলেন যে, আমি শিবচন্দ্র কিংব। তাহার স্ত্রীর দোষ দিতেছি, সোজা করিয়া না বলিয়া ঘুরাইয়া নিন্দা করিতেছি, তাহা হইলে তাহার। আমাকে ভুল বুঝিয়াছেন। সংসারে যাহা নিয়ম, যে রীতি-নীতি আজ পর্য্যস্ত চলিয়া আসিয়াছে, আমি তাহারই উল্লেখ করিয়াছি মাত্র । মাধবীর যেন কপাল পুড়িয়াছে, তাহার আপনার বলিবার স্থান নাই, তাই বলিয়। অপরে নিজের দখল ছাড়িবে কেন ? স্বামীর দ্রব্যে স্ত্রীর অধিকার এ কথা কে না জানে? শিবচন্দ্রের স্ত্রী কি শুধু একথা বুঝে না ? শিবচন্দ্ৰ ন হয় মাধবীর ভ্রাতা, কিন্তু সে মাধবীর কে ? পরের জন্য সে নিজের অধিকার ছাড়িয়া দিবে কেন ? মাধবী সব বুঝিতে পারে। বেী যখন ছোট ছিল, তখন ব্ৰজবাবু বাচিয়া ছিলেন, তখন মাধবীর নিকট প্রমীলাতে ও তাহাতে প্রভেদ ছিল না। এখন কথার অনৈক্য হয়। সে চিরদিন অভিমানিনী, তাই সে সকলের নীচে । কথা সহিবার ক্ষমতা নাই, তাই সে কথা সহে না । যেখানে তার জোর নাই সেখানে মাখা উচু করিয়া দাড়াইতে তাহার মাথ৷ কাটা যায়। মনে দুখ Yoo