পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (প্রথম সম্ভার).djvu/৩৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ঐকাপ্ত যতটুকু দেখা গেল, তাহাতে—অত্যন্ত মান এবং উৎকর্ণ হইয়া জপেক্ষা করিয়া থাকিলে ষেরূপ দেখায়, তাহার শুষ্কমূখে ঠিক সেই ভাব প্রকাশ পাইল । আমি বলিলাম, ইন্দ্র, এইবার চল । ইন্দ্র অন্তমনস্কভাবে কহিল, কোথায় ? এই যে বললে, কোথায় যাবে ? থাকৃ—আজ আর না । আমি খুশী হইয়া কহিলাম, বেশ, তাই ভাল ভাই—চল বাড়ি যাই । প্রত্যুত্তরে ইন্দ্র আমার মুখের পানে চাহিয়া প্রশ্ন করিল, হারে শ্ৰীকান্ত, মরলে মাহুব কি হয় তুই জানিস্ ? আমি তাড়াতাড়ি বলিলাম, না ভাই জানিনে ; তুমি বাড়ি চল । তারা সব স্বর্গে ষায় ভাই ! তোমার পায়ে পড়ি, তুমি আমাকে বাড়ি রেখে এস । - ইন্দ্ৰ যেন কৰ্ণপাতই করিল না । কহিল, সবাই ত স্বর্গে যেতে পায় না । তা ছাড়া খানিকক্ষণ সবাইকেই এখানে থাকৃতে হয় । দ্যাখ, আমি যখন ওকে জলের উপর শুইয়ে দিচ্ছিলুম, তখন সে চুপি চুপি স্পষ্ট বললে, ভেইয়। আমি কম্পিতকণ্ঠে কাদ কা হইয়। বলিয়া উঠিলাম, কেন ভয় দেখাচ্ছে ভাই, আমি অজ্ঞান হয়ে যাবো । ইন্দ্র কথা কহিল না, অভয় দিল না, ধীরে ধীরে বোটে হাতে করিয়া নৌকা ঝাউবন হইতে বাহির করিয়া ফেলিল এবং সোজা বহিতে লাগিল। মিনিট-দুই নিঃশবে থাকিয়া গম্ভীর মৃদুস্বরে কহিল, শ্রীকান্ত, মনে মনে রাম নাম কর, সে নৌকা ছেড়ে যায়নি—আমার পেছনেই ব'সে আছে । তারপর সেইখানেই মুখ গুজিয়া উপুড় হইয়া পড়িয়ছিলাম। আর আমার মনে নাই । যখন চোথ চাহিলাম তখন অন্ধকার নাই—নৌকা কিনারায় লাগানো । ইজ আমার পায়ের কাছে বসিয়াছিল ; কহিল, একটু হেঁটে যেতে হবে শ্রীকান্ত, উঠে বোস । ল। আর চলে না—এমূনি করিয়া গঙ্গার ধারে ধারে চলিয়া সকালবেলা রক্তচক্ষু ও একান্ত শুষ্ক মান মুখে বাটী ফিরিয়া আসিলাম । একটা সমারোহ পড়িয়া গেল। এই ষে ! এই ষে ! করিয়া সবাই সমস্বরে এমৃনি অভ্যর্থনা করিয়া উঠিল যে, আমার ৰংপিও থামিয়া যাইবার উপক্রম হইল। বতানদা প্রায় আমার সমবয়সী। অতএব তাহার আনন্দটাই সৰ্ব্বাপেক্ষা প্রচও। সে কোৰ হইতে ছুটয়া আলিয়া উন্মত্ত চীৎকার শৰেী—এলেচে স্ত্রকাণ্ড देॐ