প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (সপ্তম সম্ভার).djvu/২৮৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎ-সাহিত্য-সংগ্ৰহ এখানে ও-সব নেই। আমাদের অমূল্য ত ফি বছর ভাল ভাল প্রাইজ বই ঘরে আনে, কিন্তু কখখন ঘূৰ্যটুষ দিতে হয় না। এই সময় অমূল্য কোথা হইতে আসিয়া জান্তে আস্তে তাহার ছোটমার কোলে গিয়া বসিল । আসিয়াই গলা ধরিয়া কানে কানে বলিল, কাল রবিবার, ছোটমা, আজ মাস্টারমশায়কে যেতে বলে দাও না । বিন্দু হাসিয়া বলিল, এই ছেলেটি দেখচ ঠাকুরবি, এটি গল্প পেলে আর উঠবে না —কদম, মাষ্টারমশায়কে বলে দে, অমূল্য আজ আর পড়বে না। নরেন আশ্চৰ্য্য হইয়া বলিল, ও কি রে অমূল্য, অতবড় ছেলে এখনও মেয়েমানুষের কোলে গিয়ে বসিল । বিন্দু হাসিয়া বলিল, শুধু এই বুঝি ? এখনও রাত্তিরে— অমূল্য ব্যাকুল হইয়া তাহার মুখে হাত চাপ দিয়া বলিল, ব’লে না ছোট মা, य'tणीं नः । বিন্দু বলিল না, কিন্তু অন্নপূর্ণ বলিয়া দিলেন ; বলিলেন, এখনোও রাত্তিরে ছোট মার কাছে শোয় । বিন্দু বলিল, শুধু শোয় দিদি, এখনো সমস্ত রাত্তিরে বাদুড়ের মত জাকড়ে | " বা আন নামা নেকাংলম লি নরেন কহিল, ছি. ছি. তুই কি রে । তুই ইংরাজী পড়িল ? অন্নপূর্ণ বলিলেন, পড়ে বৈ কি। ইস্কুলে ও ত ইংরাজী পড়ে। নরেন বলিল, ইল, ইংরাজী পড়ে। কই, ইন্‌জিন বানান করুকৃ ত দেখি ? তা আর করতে হয় না । এলোকেশী বলিলেন, ও-সব শক্তকথা, ও কি ছেলেমানুষ পারে ? অন্নপূর্ণ বলিলেন, কই অমূল্য বানান কর না ? অমূল্য কিন্তু কিছুতেই মুখ তুলিল না ! বিন্দু তাহার মাথাটা একবার বুকে চাপিয়ে ধরিয়া বলিল, তোমরা সবাই মিলে ওকে লজা দিলে ও আর কি করে বানান করে ? তারপর এলোকেশীর দিকে চাহিয়া বলিল, ও আমার আসচে বছর পাস দেবে, আমাদের মাস্টারমশাই বলেচেন, ও কুড়ি টাকা জলপানি পাবে। ও সেই টাকা দিয়ে ওর কাকার মত এক ঘোড়া কিনবে । কথাটা সত্য হইলেও পরিহাসচ্ছলে সবাই হাসিতে লাগিলেন। এলোকেশী বিন্দুকে উদ্দেশ করিয়া বলিলেন, আমার নরেন্দ্রনাথ শুধু কি লেখা-পড়াতেই ভাল, ও এমনি থিয়েটারে অ্যাক্টো করে, ষে লোকে শুনে আর চোখে ՀՆ օ