প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (সপ্তম সম্ভার).djvu/২৮৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বিন্দুর ছেলে জল রাখতে পারে না। সেই সীতা সেজে কি-রকমটি করে বলেছিলি, একবার মামীদের শুনিয়ে দাও ত বাবা । নরেন তৎক্ষশাখ হাটু গাড়িয়া বলিয়া হাত জোড় করিয়া উচ্চ নাকিস্থরে স্বর করিয়া আরম্ভ করিয়া দিল, প্ৰাণেশ্বর । কি কুক্ষণে দাসী তব— বিন্দু ব্যাকুল হইরা উঠিল—ওরে থাম থাম, চুপ কর, বঠ ঠাকুর ওপরে আছেন। নরেন চমকিয়া চুপ করিল। श्रद्रशूली भेट्टेकू उनिबाई मूर्भ श्हेब भिबाहिरणन, बलिप्लन, उनरलझे बl, ठाकूद्रদেবতার কথা, এ-ত ভাল কথা ছোটবোঁ । বিন্দু বিরক্ত হইয়া বলিল, তবে শোন তুমি ঠাকুর-দেবতার কথা, আমরা উঠে যাই। নরেন বলিল, আচ্ছা, তবে থাক আমি সাবিত্রীর পার্ট করি । বিন্দু বলিল, না । এই কণ্ঠস্বর শুনিয়া এতক্ষণে অন্নপূর্ণর চৈতন্ত হইল যে, ব্যাপারটা অনেক দূরে গিয়াছে এবং এইখানেই তাহার শেষ হইবে না। এলোকেশী নূতন লোক, তিনি ভিতরের কথা বুঝিলেন না, বলিলেন, আচ্ছ এখন থাক । পুরুষের বেরিয়ে গেলে সে একদিন স্থপুরবেলা হতে পারবে । আহা গান-বাজনাই কি ও কম শিখেচে ? দময়ন্তীয় সেই কেঁদে কেঁদে গানটি একবার বলিঙ্গ ত বাবা, তোর মামীরা গুনলে জার ছাড়তে চাইবে না । নরেন বলিল, এখনি বলব ! রাগে বিন্দুর সর্বাঙ্গ জালা করিতেছিল, সে কথা কহিল না। অন্নপূর্ণ তাড়াতাড়ি বলিয়া উঠিলেন, না না, গান-টান এখন কাজ নেই। নরেন বলিল, আচ্ছ, গানটা আমি অমূল্যকে শিখিয়ে দেব। আমি বাজাতে জানি । ত্রেকেট তাক, বাজনা বড় শক্ত মামী, আচ্ছা, এই পেতলের হাড়িটা একবার দাও ত দেখিয়ে দিই । বিন্দু অমূল্যকে উঠবার ইঙ্গিত করিয়া বলিল, যা অমূল্য, ঘরে গিয়ে পড় গে। অমূল্য মুগ্ধ হইয়া শুনিতেছিল, তাহার উঠিবার ইচ্ছা ছিল না, চুপি চুপি বলিল, আরো একটু বসে না ছোটমা। বিন্দু কোন কথা না বলিয়া তাহাকে তুলিয়া দিয়া সঙ্গে করিয়া ঘরে চলিয়া গেল। সহসা সে কেন বে স্বমন করিয়া গেল, অন্নপূর্ণ তাহা বুঝিলেন এবং পাছে সঙ্গোদোষে অমূল্য বিগড়াঙ্গস্থা যায়, এই ভয়ে নরেনের এইখানে থাকিয়া, লেখা-পড়াও ষে সে পছন্দ কৰিবে না, ইহা স্কম্পষ্ট বুঝিয়া তিনি উদ্বিগ্ন হইয়া উঠিলেন। বলিলেন, বাবা নরেন, তোমার ছোটমামীর সামনে ঐ অ্যাক্টো-ট্যাক্টোগুলা আর ক’রো না ; ७ ब्रोो बाक्लव, ७ ७-जब खानदारन न । Հեծ و چجیسی ۹