পাতা:শিক্ষাবিধায়ক প্রস্তাব.pdf/৫৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


६ २ ।। শিক্ষাবিধায়ক প্রস্তাব ! অঙ্কশিক্ষার প্রথমেই সংখ্য গুলির নাম শিখাইতে হয়। কিন্তু শিক্ষাশাস্ত্রের সাধারণ নিয়ম এই যে, কোন পদার্থের নাম শিক্ষা করাইবার সময়ে সেই পদtর্থকে শিশুদিগের প্রত্যক্ষ গোচর কর । কৰ্ত্তব্য। পরন্তু সংখ্যার প্রত্যক্ষ হয় না । উছা কেবল মনে২ ভtfৰয়াই বুঝিতে হয় । এইরূপ বৈষম্য নিবারণের অভিপ্রায়েই অপমাদিগের দেশে ১কে-চন্দ্র, ২য়ে-পক্ষ ইত্যাদি প্রচলিত শতিক পাঠের রীতি প্ৰবৰ্ত্তিত হইয়। থাকিবে । কিন্তু ইহাকে উত্তম রীতি বলিয়। গণ্য কর মাইতে পারে না । কারণ পক্ষ নেত্ৰ’ প্রভৃতি পদার্থ গুলি শিশুদিগের অনায়াসে বোধগম্য হুইবার লছে । সুতরাং ঐ সকল শব্দের ব্যবহার করা সুযুক্তিযুক্ত বোধ হইতেছে না । বরং তৎপরিবৰ্ত্তে শিশুর যদি আপনfদিগের হুস্তের এক২ট অঙ্গুলি নির্দেশ পূৰ্ব্বক একটা অল্প লি দেখাইয়। এক, দুইটা দেখাইয়। দুই, তিনট দেখাইয়। তিন, ইত্যাদিরূপে অঙ্ক গুলির নাম পাঠ করিতে শিখে তাহা হইলে ভাল হয় । কিন্তু শিক্ষণশাস্ত্রকারের এক্ষণে শতিক পাঠের নিমিত্ত অtৱ একটী বিশেষ উপায় করিয়াছেন । ভ1ছ। অবলম্বন কর+অধিকতর শ্রেয়স্কর সন্দেহ নাই । তাহার। একটা কাঠের ক্রেমের ভিতরে দশট লৌহের শলাকা পরিহিত করাইয় এবং তাহার প্রত্যেক শলাকায় দশটী২ করিয়৷ কাষ্ঠময় বৰ্ত্তল গ্রথিত করিয়৷ যে, একটা যন্ত