পাতা:শিখগুরু ও শিখজাতি.pdf/৩৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


দ্বিতীয় অধ্যায় ని. ঐ সকল শাস্ত্রে আপন আপন পাণ্ডিত্য প্রকাশ করিয়াছেন ; শাস্ত্রসমূহ ভ্ৰমে পরিপূর্ণ, ভগবানকে লাভ করিবার জন্য সংসারত্যাগী সন্ন্যাসী হওয়া অনাবগুক। আমাদের প্রতিদিনের জীবনে ভগবান মিলিয়া মিশিয়া রহিয়াছেন। পৰ্ব্বত-গহবর-নিবাসী কঠোর যোগী ও রাজপ্রাসাদ নিবাসী ধনবান দুইই তাহার চক্ষে তুল্য। কে কি জাতি ভগবান কখন তাহার সন্ধান লইবেন না, সংসারে আসি কে কি করিলেন তাহাই তিনি দেখিবেন।” মোটামুটি হিন্দুসমাজের কুসংস্কার ও মূৰ্ত্তিপূজা এবং মুসলমানদিগের গোড়ামি দূর করিবার জন্ত তিনি প্রাণপণ চেষ্টা করিয়াছিলেন । - গুরু নানক কোরাণ ও বেদ ভ্রমপূর্ণ বলিলেও কোনটা একেবারে অস্বীকার করেন নাই। মুসলমানদিগের পর-ধৰ্ম্ম-বিদ্বেষ ও গোহত্যার তিনি তীব্র প্রতিবাদ করিয়াছেন। বোগাদ নগরে অবস্থানকালে তিনি এক দিন মুসলমানদের ডাকমমাজের মন্ত্র পরিবর্ভূিত করিয়া সৰ্ব্ব ধৰ্ম্মাবলম্বীদিগকে একই ক্ষেত্রে উপাসনার নিমিত্ত আহবান করিয়াছিলেন। এই উপলক্ষ্যে তথাকার মসজিদের প্রধান মুল্লার সহিত র্তাহার বাঙ্গানুবাদ চলিয়াছিল। তিনি মুল্লাকে বলিয়াছিলেন—"ভূলোকে, হালোকে যিনি নিত্যকাল বিরাজিত, একমাত্র সেই অদ্বিতীয় পরমেশ্বরকে আমি স্বীকার করি-কোনো সম্প্রদায়ের দেবতাকে স্বীকার করি না ।” নানকের একটি উক্তিতে র্তাহার ধৰ্ম্মমতের উচ্চতা বুঝিতে পারা যায়। তিনি বলিয়াছিলেন —“লক্ষ লক্ষ মহম্মদ, কোটি কোটি ব্ৰহ্মা বিষ্ণু, সহস্ৰ সহস্র রাম সেই মহান পর ব্রহ্মের মন্দিরের দ্বার-দেশে দণ্ডায়মান, আছেন । ইহাদের সকলেই বিনাশ প্রাপ্ত হইবেন, একমাত্র তিনিই অবিনশ্বর । সকলেই তাহার গুণগান করেন বটে, কিন্তু আপন আপন. o ; 3 & #: 憩数