প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শেষ প্রশ্ন.djvu/১৪৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শেষ প্রশ্ন S88 হরেন্দ্রর ভাই-বোন ছিলনা । পিতা ওকালতি করিয়া অর্থ সঞ্চয় করিয়া গিয়াছিলেন। র্তাহার মৃত্যুর পরে সংসারে অবশিষ্ট ছিলেন শুধু হরেনের বিধবা মা । তিনিও পরলোক গমন করিলেন ছেলের যখন লেখা-পড়া সাঙ্গ হইল। অতএব, আপনার বলিতে এমন কেহই আর রহিলন যে তাহাকে বিবাহের জন্য পীড়াপীড়ি করে, কিম্বা উদ্যোগ ও আয়োজন করিয়া পায়ে শৃঙ্খল পরায়। অতএব, পড়া যখন সমাপ্ত হইল, তখন নিতান্ত কাজের অভাবেই রূরেন্দ্র দেশ ও দশের সেবায় আত্মনিয়োগ করিল। সাধু-সঙ্গ বিস্তর করিল, ব্যাঙ্কের জমানো-সুদ বাহির করিয়া'দুৰ্ভিক্ষ-নিবারণ-সমিতি গঠন করিল, বন্যাপ্লাবনে আচাৰ্য্যদেবের দলে ভিড়িল, যুক্তি-সঙ্ঘে মিলিয়া কানা খোড়া তুলো হাবা বোবা ধরিয়া আনিয়া সেবা করিল,—নাম জাহির হইতেই দলে দলে ভালো ৰোকেরা আসিয়া তাহাকে বলিতে লাগিল টাকা দাও পরোপকার করি। বাড়তি টাকা শেষ হইয়াছে, পুজিতে, হাত না দিলে আর চলেন,—এমুনি যখন অবস্থা, তখন হঠাৎ একদিন অবিনাশের সঙ্গে তাহার পরিচয় । সম্বন্ধ যত দুরের হোক, পৃথিবীতে একটা লোকও যে তখনো বাকি আছে যাহাকে আত্মীয় বলা চলে, এ খবর সেই দিন সে প্রথম পাইল । অবিনাশদের কলেজে তখন মাষ্টারি একটা খালি ছিল, চেষ্টা করিয়া সেই কৰ্ম্মে তাহাকে নিযুক্ত করাইয়া সঙ্গে করিয়া আগ্রায় আনিলেন। এ দেশে আসিবার ইহাই তাহার ইতিহাস । পশ্চিমের মুসলমানী আমলের প্রাচীন সূহরগুলায় সাবেক কালের অনেক বড় বড় বাড়ী এখনও অল্প ভাড়ায় পাওয়া যায়, ইহারই একটা হরেন্দ্র জোগাড় করিয়া লইল । এই তাহার আশ্রম। @ কিন্তু, এখানে আসিয়া যেকয়দিন সে অবিনালের গৃহে অতিবাহিত করিল তাহারই অবকাশে নীলিমার সহিত তাহার পরিচয় । এই মেয়েটি