প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শেষ প্রশ্ন.djvu/৩৫৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


HIV * শেষ প্রশ্ন নয়, জাতিগঠনের প্রাণ ও উপাদান সেদিন এর মধ্যেই নিহিত ছিল, "আজ এ যুগেও সে উপাদান অবহেলার সামগ্রী নয়। মরণোন্মুখ ভারতকে শুধু কেবল এই পথেই আবার বাচিয়ে তোলা যায়। আশ্রমের আচার ও অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে আমরা এই বিশ্বাস, এই শ্রদ্ধাকেই জাগিয়ে রাখতে চাই। একদিন মন্ত্ৰ-মুখরিত, হোমাগ্নি-প্রজ্ঞধুলত, তপস্তাকঠোর ভারতের এই আশ্রমই জাতি-জীবনের একটা মৌলিক কল্যাণ সফল করবার উদ্দেশ্বেই উদ্ভূত হয়েছিল ; সে প্রয়োজন আজও যে বিলুপ্ত হয়ে যায়নি এ সত্য কোন মুখ অস্বীকার করতে পারে ? সতীশের বস্তৃতায় আন্তরিকতার একটা জোর ছিল , কথাগুলি ভালো এবং নিরন্তর বলিয়া বলিয়া একপ্রকার মুখস্থ হইয়। গিয়াছিল। শেষের দিকে তাণ্ডার যুদ্ধকণ্ঠ সতেজ, ও উদ্দীপনায় কালো মুখ বেগুনে হইয়া উঠিল । সেই দিকে নিঃশব্দ ও নিম্পলক চক্ষে চাহিয়া সুপবিত্র ভাবাবেগে অজিতের আপাদমস্তক রোমুঞ্চিত হইয়া উঠিল, এবং হরেন্দ্র তাহার আশ্রমের বিরুদ্ধে ইতিপূৰ্ব্বে যত মৌখিক আম্ফালনই করিয়া থাকৃ, আশ্রমের বিগত গৌরবের বিবরণে বিশ্বাস ও অবিশ্বাসের মাঝখানে সে বুড়ের বেগে দোল খাইতে লাগিল। আহারই মুখের প্রতি সতীশ তীক্ষ দৃষ্টি রাখিয়া বলিল, হরেনদা, আমরা মরেছি, কিন্তু এই আশ্রমের মধ্যে দিয়েই যে আমাদের নবজন্ম লাভের বিজ্ঞান আছে, এ সত্য ভুলতে যাচ্ছেন আপনি কোন যুক্তিতে ? আপনি ভাঙতে চাচ্চেন, কিন্তু ভাঙাটাই কি বড় ? গেৰুড়ে তোলা কি তার চেয়ে ঢুের বেশি বড় নয় ? আপনিই বলুন ? কমলের মুখের প্রতি চাহিয়া জিজ্ঞাসা করিল, জীবনে ক’টা আশ্রম সুপনি নিজের চোখে দেখেছেন ? কটার সঙ্গে আপনার যথার্থ নিগূঢ় পরিচয় আছে? ബ 있3)