প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শেষ প্রশ্ন.djvu/৩৬০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শেষ প্রশ্ন ○○やり সতীশ হঠাৎ জবাব খুজিয়া না পাইয়া বলিল, তবে কি আমাদের পূৰ্ব্ব পিতামহদের আদর্শ ভ্রান্ত ? তাদের তত্ত্ব-নিরূপুণে সত্য ছিলনা ? হরেন্দ্র বলিল, সেদিন ছিল হুয়ত, কিন্তু আজ না থাকায় বাধা নেই। সেদিনের স্বগের পথ আজ যদি যমের দক্ষিণ দোরে এনে হাজির করে দেয়, মুখ ভাধ করবার হেতু পাইনে সতীশ । " সতীশ গৃঢ় ক্রোধ প্রাণপণে দমন করিয়া কহিল, হরেন্দা, এ সব শুধু আপনাদের আধুনিক শিক্ষার ফল ; আর কিছুই নয়। হরেন্দ্র বলিল, অসম্ভব নয়। কিন্তু আধুনিক শিক্ষা যদি আধুনিক কালের কল্যাণের পথ দেখাতে পারে, আমি লঙ্গার কারণ দেখিনে সতীশ । সতীশ বহুক্ষণ নিৰ্ব্বাক স্তন্ধ ভাবে বসিয়া পরে ধীরে ধীরে কহিল, লজ্জার,—সহস্র লজ্জার কারণ কিন্তু আমি দেখি হরেনদী। ভারতের জ্ঞান, ভারতের প্রাচীন তত্ত্ব এই ভারতেরই বিশেষত্ব এবং প্রাণ। সেই ভাব, সেই তত্ত্ব বিসর্জন দিয়ে দেশকে যদি স্বাধীনতা অর্জন করতে হয়, তবে সে স্বাধীনতায় ভারতের তো জয় হবেনা, জয় হবে শুধু পাশ্চাত্য নীতি ও পাশ্চাত্য সভ্যতাঁর । সে পরাজয়ের নামান্তর । তার চেয়ে মৃত্যু ভালো । তাহার বেদনা আন্তরিক। সেই ব্যথার পরিমাণ অনুভব কুরিয়া হরেন্দ্র মৌন হইয়া রহিল, কিন্তু জবাব দিল এবার কমল । মুখে সুপরিচিত "পরিহাসের চিহ্নমাত্র লাই, "কণ্ঠস্বর সংযত, শান্ত ও মৃদ্ধ ; বলিল, সতীশবাবু, নিজের জীবনে যেমন নিজেকে বিসর্জন দিয়েছেন, সংস্কারের দিক দিয়েও যদি তাকে এমনি পরিত্যাগ করতে পারতেন, এ কথা উপলব্ধি করা আজ কঠিন হোতোনা যে ভাবের জন্তে, বিশেযত্বের জন্যে মানুষ নয়, মানুষের জন্যেই তার সমাদর, মানুষের জন্যেই