পাতা:শ্রীমদ্‌ভগবদ্‌গীতা-বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়.djvu/১০৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


& e শ্ৰীমদ্ভগবদগীত । বিশ্বাস করিতে বাধ্য ; তাহার আর বিচার আচারের প্রয়োজন নাই । সত্য বটে, রোম গ্রীস প্রভৃতি প্রাচীন রাজ্য প্রতিম। পূজা করিয়াও উন্নত হইয়াছিল, কিন্তু ইংরেজ বলেন যে ভারতবর্ষ প্রতিমাপূজায় উৎসল্প যাইবে, অতএব ভারতবর্ষ নিশ্চয় প্রতিমাপুজায় উৎসল্প যাইবে ; তদ্বিষয়ে বিচারের প্রয়োজন নাই । এইরূপ শিক্ষিত সম্প্রদায়ের মধ্যে অনেকে ভাবিয়া থাকেন । অন্তমত বিবেচনা করা কুশিক্ষা, কুবুদ্ধি, এবং নীচাশয়তার কারণ মনে করেন । আমরা এরূপ উক্তির অনুমোদন করিতে পারি না । ঈশ্বর সৰ্ব্বজ্ঞ, সকলের অন্তর্যামী । সকলের অস্তরের ভিতর তিনি প্রবেশ করিতে পারেন, সকল প্রকারের উপাসনা গ্রহণ করিতে পারেন । কি নিরাকারের উপাসক কি সাকারোপাসক, কেহই র্তাহীর প্রকৃত স্বরূপ অনুভূত করিতে পারেন না । তিনি অচিস্তনীয়। অতএব ঠাহীর চক্ষে সাকার উপাসকের উপাসনা ও নিরাকার উপাসকের উপাসনা তুল্য , কেহই তাহাকে জানে না । যদি ইহা সত্য হয় যদি ভক্তিই উপাসনার সার হয়, এবং ভক্তি শূন্ত উপাসনা যদি তাহার তাগ্রাহাই হয়, তবে ভক্তিযুক্ত হইলে সাকারোপাসকের উপাসনা তাহার নিকট গ্রাহ ; ভক্তিশূন্ত হইলে নিরাকারোপাসকের উপাসনা তাহার নিকট পৌছিবে না । অতএব আমাদের বিশ্বাস যে ভারতবর্ষায়ের যদি ঈশ্বরে ভক্তি থাকে, তবে সাকার উপাসনার ভাবে আচ্ছন্ন হুইলেও কেছ উৎসল্প বাইবে না ; আর ভক্তিশূন্ত হইলে নিরাকারোপাসনায়ও উৎসল্প হইবে, তদ্বিষয়ের কোন সংশয় নাই । সীকার ও নিরাকার উপাসনার মধ্যে আমাদের মতে কোনটাই নিষ্ফল নছে ; এবং