পাতা:শ্রীমদ্‌ভগবদ্‌গীতা-বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়.djvu/১২২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


দ্বিতীয় অধ্যায়। 笼多为 ممت*مہم-لاسہ"مہ۔ یہ منھم.....ہی. প্রথম—সাংখ্য কি ? "সম্যক্ খ্যায়তে প্রকাগুতে বস্তুতত্ত্বমনয়েতি সংখ্যা । সম্যগৃঞ্জানং তস্তাং প্রকাশমানমাত্মতত্ত্বং সাংখ্যম।” (শ্রীধর) । যাহার দ্বারা বস্তুতত্ত্ব সম্যক্ প্রকাশিত হয়, তাহ সংখ্যা । তাহার সম্যগৃজ্ঞান প্রকাশমান আত্মতত্ত্ব সাংখ্য । সচরাচর সাংখ্য নামটী এক্ষণে দর্শনবিশেষ সম্বন্ধেই ব্যবহৃত হইয়া থাকে, তজ্জন্ত ইংরেজ পণ্ডিতের গুরুতর ভ্রমে পড়িয়া থাকেন । বস্তুতঃ এই গীতাগ্রন্থে সাংখ্য শবদ “তত্ত্বজ্ঞান” অর্থেই ব্যবহৃত দেখা যায়, এবং ইহাই ইহার প্রাচীন অর্থ বলিয়া বোধ হর । দ্বিতীয়—যোগ কি ? যেমন সংখ্য এক্ষণে কপিল-দশনের নাম, যোগও এক্ষণে পাতঞ্জল দর্শনের নাম । পতঞ্জলি যে অর্থে যোগ শব্দ ব্যবহার করিয়াছেন, * এক্ষণে সচরাচর যোগ বলিলে তাহাঁই আমরা বুঝিয়া থাকি । কিন্তু গীতায় যোগ শব্দ সে অর্থে ব্যবহৃত হয় নাই। তাহ হইলে, “কৰ্ম্মযোগ” “ভক্তিযোগ” ইত্যাদি শব্দের কোন অর্থ হয় না। বস্তুতঃ গীতায় “যোগ” শব্দটী সৰ্ব্বত্র এক অর্থেই যে ব্যবহৃত হইয়াছে, এমন কথাও বলা যtয় না। সচরাচর ইহা গীতায় যে অর্থে ব্যবহৃত হইয়াছে, তাহাতে বুঝা যায় যে ঈশ্বরীরাধনা বা মোক্ষের বিবিধ উপায় বা সাধন বিশেষই যোগ। জ্ঞান, ঈদৃশ একটা উপরে বা সাধন, কৰ্ম্ম তাদৃশ উপায়াস্তর, ভক্তি তৃতীয়, ইত্যাদি—এজন্য জ্ঞানযোগ, কৰ্ম্মযোগ, ভক্তিযোগ ইত্যাদি শব্দ ব্যবহার হইয়া থাকে । সচরাচর এই অর্থ, কিন্তু এ শ্লোকে সে অর্থে ব্যবহৃত হইতেছে না । এ স্থলে “যোগ” অর্থে কৰ্ম্মযোগ । এই অর্থে “যোগ” “যোগী” “যুক্ত” s ধোগশ্চিত্তবৃত্তিনিরোধঃ । z