পাতা:শ্রীমদ্‌ভগবদ্‌গীতা-বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়.djvu/১২৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


* দ্বিতীয় অধ্যায় । $్సరీ থাকে, তবে চিত্তশুদ্ধিদ্বারা তত্ত্বজ্ঞান জন্মিবার নিমিত্ত এই “কৰ্ম্মযোগ” কহিতেছেন ( হিতলাল মিশ্র ) । বলা বাহুল্য, এরূপ কথা মূলে এখানে নাই । তবে স্থানাস্তরে এরূপ কথা আছে বটে, যথা— : আরুরুক্ষোমুনেৰ্যোগং কৰ্ম্ম কারণমুচ্যতে ৷ ৩াণ্ড কিন্তু আবার স্থানবিশেষে অন্ত প্রকার কথাও পাওয়া যাইবে, যথা— যৎ সাংখ্যৈঃ প্রাপ্যতে স্থানং তদযোগৈরপি গম্যতে £estfit 1 cle.a এ সকল কথার মৰ্ম্ম পশ্চাৎ বুঝা যাইবে । এই শ্লোকে কৰ্ম্মযোগের ফলও কথিত হইতেছে । এই ফল “কৰ্ম্মবন্ধ” হইতে মোচন । কৰ্ম্মবন্ধ কি ? কৰ্ম্ম করিলেই তাহার ফলভোগ করিতে হয় । জন্মান্তরবাদীরা বলেন, এ জন্মে যাহা করা যায়, জন্মাস্তরে তাহার ফলভোগ করিতে হয়। যদি আর পুনর্জন্ম না হয়, তবেই আর কৰ্ম্মফল ভোগ করিতে হইল না । তাহা হইলেই কৰ্ম্মবন্ধ হইতে মুক্তি হইল। অতএব মোক্ষপ্রাপ্তই কৰ্ম্মবন্ধ হইতে মুক্ত । কিন্তু যে জন্মস্তির না মানে, সেও কৰ্ম্মবন্ধ হইতে মুক্তি এ জীবনের চরমোদেশু বলিয়া মানিতে পারে । পরকালে বা জন্মাত্তরে কি হইবে তাহ জানি না, কিন্তু আমরা সকলেই জানি যে ইহজন্মেই আমরা সকল কর্ণের ফল ভোগ করিয়া থাকি। আমরা সকলেই জানি যে হিম লাগাইলে ইহজন্মেই সর্দি হয় । আমরা সকলেই জানি যে রোগের চিকিৎসা করিলে রোগ আরিাম হয়। সকলেই জানি ষে আমরা যদি কাহারও শত্রুত করি, তবে সেও ইহজীবনেই আমাদের শক্রত করে, এবং আমরা যদি কাহারও উপকার করি, তবে তাহার ইহজীবনেই আমাদের