পাতা:শ্রীমদ্‌ভগবদ্‌গীতা-বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়.djvu/১৫৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


দ্বিতীয় অধ্যায় । $8d অসৎকৰ্ম্ম আমাদের জীবন নিৰ্ব্বাহের নিয়ম নহে--ইহা আমাদের Law of Life নহে । অসৎকৰ্ম্ম না করিয়া কেই ক্ষণকাল থাকিতে পারে না, এমন নহে ;-অসৎ কৰ্ম্ম না করিলে কাহারও শরীরযাত্রা নিৰ্ব্বাহের বিম হয় না । চুরি বা পরদার না করিয়া কেহ যে বাচিতে পারে না, এমন নহে । সুতরাং অসৎ কৰ্ম্ম করিতে হইবে না । তৃতীয় অধ্যায় হইতে উদ্ধৃত ঐ দুই শ্লোক হইতে উহা বুঝা যাইতেছে, পশ্চাৎ আরও বুঝা যাইবে । পক্ষাস্তরে, ইহাও জিজ্ঞাসিত হইতে পারে, যে যাহাকে সৎকন্ম বলি, তাহাই কি আমাদের জীবন যাত্রার নিয়ম ? আমরা কতকশুলিকে সৎকৰ্ম্ম বলি, যথা পরোপকারাদি ;–আর কতকগুলিকে অসৎকৰ্ম্ম বলি, বথা পরদারগমনাদি ;-আর কতকগুলিকে সদসৎ কিছুই বলি না, যথা শয়ন ভোজনাদি । ভাল, বুঝা গিয়tছে, যে দ্বিতীয় শ্রেণীর কৰ্ম্মশুলি, করিবার প্রয়োজন নাই ; এবং তৃতীয় শ্রেণীর কৰ্ম্মগুলি না করিলে নর সুতরাং করিতে হইবে । কিন্তু প্রথমশ্রেণীর কৰ্ম্মগুলি করিব কেন ? সৎকৰ্ম্ম মনুষ্যজীবনের নিয়ম কিসে ? এ কথার উত্তর আমার প্রণীত ধৰ্ম্মতত্ত্ব নামক গ্রন্থে সবিস্তারে দিয়াছি, সুতরাং পুনরুক্তির প্রয়োজন নাই । আমি সেই গ্রন্থে বুঝাইয়াছি, যে যাহাকে আমরা সৎকৰ্ম্ম বলি, তাহাই মনুষ্যত্বের প্রধান উপাদান । অতএব ইহা মনুষ্যজীবন নিৰ্ব্বাহের নিয়ম । বস্তুতঃ, কৰ্ম্মের এই ত্ৰিবিধ প্রভেদ করা যায় না । যাহাকে সৎকৰ্ম্ম বলি, আর যাহাকে সদসৎ কিছুই বলি না, অথচ করিডে বাধ্য হই, এতছু ভয়ই মনুষ্যত্ব পক্ষে প্রয়োজনীয় । এই জন্তু এই