পাতা:শ্রীমদ্‌ভগবদ্‌গীতা-বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়.djvu/৯২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


छ्रिङौछ् श्रृश्वासैश्च । জ৯ যং হি ন ব্যথযন্ত্যেতে পুরুষং পুরুষৰ্ষভ । সমদু:খসুখং ধীরং সোহমূতত্ত্বীয় কল্পতে ॥ ১৫ ॥ হে পুরুষৰ্ষভ! সুখদু:খে সমভাব যে ধীর পুরুষ এ সকলে ব্যথিত হন না, তিনিই মোক্ষ লাভে সমর্থ হন। সুখ দুঃখ সহ্য করিতে পারলে মোক্ষলাভের উপযোগী হয় কেন ? দুঃখ হইতে মুক্তিষ্ট, মুক্তি বা মোক্ষ । সংসার দুঃখময় । র্যাহারা বলেন সংসারে দুঃখের অপেক্ষ মুথ বেশী, তাহদেরও স্বীকার করিতে হুইবে, সংসারে দুঃখ আছে। এ জন্ত জন্মান্তরও দুঃখ, কেননা পুনৰ্ব্বার সংসারে আসিয়া আবার দুঃখ ভোগ করিতে হইবে। অতএব পুনজ স্ম হইতে মুক্তিলাভও মুক্তি বা মোক্ষ । স্থূলতঃ দুঃখভোগ হইতে মুক্তিলাভই মোক্ষ । এই ଶ୍ରିତ୍ତେ সাংখ্যকার প্রথম সূত্রেই বলিয়াছেন “ত্রিবিধদুঃথস্যাত্যস্তনিবৃত্তিরত্যন্তপুরুষাৰ্থঃ ” এখন, দুঃখ সহ -করিতে শিথিলেই ছুঃখ হইতে মুক্তি হইল । কেননা, যে দুঃখ সহ্য করিতে শিথিয়াছে সে দুঃখকে আর দুঃখ মনে করে না । তাহীর আর দুঃথ নাই বলিয়া তাহার মোক্ষলাভ হইয়াছে । অতএব মোক্ষের জন্ত মরিবার প্রয়োজন নাই । দুঃখ সহ্য করিতে পারিলে, অর্থাৎ ছুঃখে দুঃখিত না হইলে, ইহ জীবনেই মোক্ষলাভ হইল । নাসতো বিদ্যতে ভাবে নাভাবে বিদ্যতে সতঃ । উভয়োরপি দৃষ্টোখস্তত্ত্বনয়োস্তত্বদশিভিঃ ॥ ১৬ ॥ অসৎ বস্তুর অস্তিত্ব নাই, সদ্বস্তুর অভাব হয় না । তত্ত্বদশি গণ এইরূপ উভয়ের অন্তদর্শন করিয়াছেন । অস্ ধাতু হইতে সৎ শস্থ হইয়াছে। যাহ থাকিবে তাঁহাই