পাতা:সিরাজদ্দৌলা - অক্ষয়কুমার মৈত্রেয়.pdf/২৫১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
২৩৭
মাণিকচাঁদের পত্র।

 নবাব-দরবারে ইংরাজদিগের কাতর নিবেদনে শুভফল ফলিবার সম্ভাবনা উপস্থিত হইল। এমন সময়ে কাশিমবাজার হইতে সহসা সংবাদ আসিল যে,—“মুর্শিদাবাদে বড়ই গোলযোগ! বাদশাহ পূর্ণিয়ার নবাব শওকতজঙ্গকেই বাঙ্গালা, বিহার, উড়িষ্যার নবাবী সনদ পাঠাইয়া দিয়াছেন। তদনুসারে যুদ্ধযাত্রার আয়োজন আরব্ধ হইয়াছে; তিনি যুদ্ধক্ষেত্রে অবতীর্ণ হইলে, অনেকেই তাঁহার পক্ষে অস্ত্রধারণ করিবেন। আর সে সিরাজদ্দৌলা নাই। তাহার প্রবল গর্ব্ব খর্ব্ব হইয়া আসিয়াছে;—তাঁহার রত্ন সিংহাসন যায় যায় হইয়া উঠিয়াছে।[১]

 এই সংবাদ পাইবামাত্র ইংরাজদিগের পূর্ব্বসংকল্প পরিবর্ত্তিত হইয়া গেল। সকলেই বলিতে লাগিলেন,—আর কেন? সময় থাকিতে উঠিয়া পড়িয়া লাগিয়া যাও। ইংরাজ-দরবার তাহাই কৱিলেন। তাঁহারা শওকতজঙ্গের সঙ্গে আত্মীয়তা করিবার জন্য এবং সিরাজদ্দৌলার সর্ব্বনাশসাধনে তাঁহাকে উৎসাহিত করিবার জন্য “নজর” পাঠাইয়া পত্র লিখিতে কৃতসংকল্প হইলেন।[২]

  1. Mr. Warren Hastings writes from Cossimbazar that great preparations were there making for a war with Shocut-Jung, the Nabob of Pyrnea, who has had the Nabobship of Bengal, Behar and Orissa conferred upon him by the king of Dily. Consultations, 5 September 1756.
  2. The Board agreed so send a letter in Persian to the Pyrnea Nabob with presents, hoping he might defeat Sirajed Dowia.— Consultations, 15 September, 1756.