পাতা:সিরাজদ্দৌলা - অক্ষয়কুমার মৈত্রেয়.pdf/৩৪৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
৩২৯
রাজবিদ্রোহ।

যে মহাজাতি আত্মগৌরবকাহিনীতে সভ্যজগৎ প্রতিশব্দিত করিয়া স্বদেশের রাজপথপার্শ্বে বৃটীশ বীরকেশরী নেল্‌সন্ ওয়েলিংটনের জয়স্তম্ভ গঠন করিয়াছে, তাহারা ক্লাইবের জন্য এখনও জাতীয় কীর্ত্তিমন্দিরে পাদপীঠ রচনা করে নাই![১]

 যাঁহারা বাণিজ্যোপলক্ষে বাঙ্গালীর গুপ্ত-মন্ত্রণায় মিলিত হইয়া, রাজবিপ্লবের কল্যাণে এ দেশের রাজ-সিংহাসন কুড়াইয়া পাইয়াছিলেন, অর্থই তাঁহাদের নিকট একমাত্র “মূলমন্ত্র” বলিয়া পরিচিত ছিল।[২] তাঁহারা যে শাস্ত্রের উপাসক ছিলেন, তাহারই মর্য্যাদারক্ষা করিয়া গিয়াছেন। তজ্জন্য তাঁহাদিগকে তিরস্কার করা বিড়ম্বনা মাত্র। আমরা যে তাঁহাদিগকেই আদর্শ ইংরাজ বলিয়া তাঁহাদের কথায়, তাঁহাদের লেখায় তাঁহাদের প্ররোচনায়, সিরাজদ্দৌলাকে নরপিশাচ বলিয়া ইতিহাসের অবমাননা করিতেছি তজ্জন্য আমরাই বরং সমধিক তিরস্কারের পাত্র।

 উমিচাঁদকে প্রতারিত করিয়াই ইংরাজেরা নিশ্চিন্ত হইতে পারিলেন না; তাঁহাকে অবিলম্বে কলিকাতায় আনিয়া মুঠার মধ্যে রাখিবার জন্য ব্যাকুল হইয়া উঠিলেন। কি সুকৌশলে “ধূর্ত্ত উমিচাঁদকে” অধিকতর ধূর্ত্ততায়

  1. The anniversary of Lord Clive's birth, though seldom observed or honored among us as continental people honor the heroes of their national Pantheon, must still fill every reflecting mind with crowding thoughts upon the strange and romantic rise of the British Power in the East.—the Indian Statesman, 30th September, 1896.
  2. In manufacturing the terms of the confederacy the grand concern of the English appeared to be money.—Mill's History of British India. vol. iii. 185.