প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:সুকথা - দীনেশচন্দ্র সেন.pdf/২০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
১২
সুকথা

 মাতৃগুপ্তের পরিচয় পাইয়া তাঁহারা তাঁহাকে রাজসিংহাসনে অভিষিক্ত করিবার প্রস্তাব জ্ঞাপন করিলেন। মাতৃগুপ্ত বুঝিলেন, পরমকারুণিক উজ্জয়িনীরাজ তাঁহার কথা ভুলিয়া যান নাই, স্বীয় সাম্রাজ্য হইতে রম্যতর রাজ্য তাঁহাকে প্রদান করিয়াছেন। কৃতজ্ঞতায় তাঁহার চক্ষু বারংবার অশ্রুপূর্ণ হইতে লাগিল।

 রাজসিংহাসনে আসীন হইয়া প্রজাগণের জয়ধ্বনির সঙ্গে তিনি অভিষিক্ত হইলেন। রাজতরঙ্গিণীকার কহ্লন কবি লিখিয়াছেন—অভিষেকের জলধারাবিন্ধ্যগাত্রে রেবাপ্রবাহের ন্যায় তাঁহার বক্ষোদেশ প্লাবিত করিয়াছিল। রাজা হইয়া তিনি মহারাজ হর্ষকে যে পত্র লিখিয়াছিলেন, অবিরল অশ্রুবিন্দুপাতে তাহার প্রতি ছত্র অভিষিক্ত হইয়াছিল।

 মহারাজ মাতৃগুপ্ত কিঞ্চিন্ন্যুন পঞ্চবর্ষ