পাতা:১৯০৫ সালে বাংলা.pdf/১১৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সমিতির অন্যান্য কাৰ্য্যবিবরণ। সভাপতি-নির্বর্বাচন । বাবু ভূপেন্দ্রনাথ বস্থ সভাপতি নিৰ্ব্বাচনের প্রস্তাব উপস্থিত করিয়া যে তেজোগর্ভ বক্তৃতা করেন, তাহা শ্রবণ করিয়া সকলেই বিষম উত্তেজিত হইয়াছিলেন। তিনি বলেন, একদিন সকলেই এদেশে ইংরাজরাজত্ব দীর্ঘকাল স্থায়ী হইবে বলিয়া মনে করিত। কিন্তু আদ্যকার ব্যাপার দেখিয়া অন্যরূপ মনে হইতেছে । নিরীহ, শাস্তিপ্রিয় ভদ্র জনসমাজের প্রতি এরূপ ঘোর অবৈধ অত্যাচার কখনই রাজ্যের পক্ষে কল্যাণকর নহে । তাহার অগ্নি-গর্ভ বক্তৃতার শেষ হইলে ছয় সহস্র কণ্ঠে ভীষণ রবে “বন্দেমাতরম" ধ্বনি হইল। বাবু মতিলাল ঘোষ এই প্রস্তাব অমুমোদন ও বাবু স্বরেন্দ্রনাথ বন্দ্যোপাধ্যায় প্রভৃতি সমর্থন করিলে সৰ্ব্বসন্মতিক্রমে উহা পরিগৃহীত হয়। তখন মিঃ রস্থল সভাপতির আসনে গিয়া উপবেশন করিলেন । সভাপতি মহাশয়ের অস্থস্থতা নিবন্ধন তাহার বক্তৃতার একাংশ শ্ৰীযুক্ত হালিম গজনভি মহোদয় পাঠ করিয়াছিলেন । প্রথম প্রস্তাব । সভাপতির বক্তৃতার পর বাবু মতিলাল ঘোষ প্রথম প্রস্তাব উপস্থিত করিলেন। সে প্রস্তাবের মৰ্ম্ম এই –যে হেতু আজ