পাতা:১৯০৫ সালে বাংলা.pdf/৫৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
[ ৪৩ ]

[চারিদিকে “বন্ধে মাতরম্” ধ্বনি উচ্চারিত হইতে লাগিল। বক্তা আসন গ্রহণ করিলে আবার জয়ধ্বনি হইতে লাগিল।]


উপহার প্রদান।

 স্বরেন্দ্র বাবু বক্তৃতা শেষ করিয়া লাঞ্ছিত মহোদয়গণকে একে একে আহবানপূর্বক পদক, বন্দেমাতরম পরিদোলক বা লকেট, বন্ধনী ব্রুচ এবং প্রশংসাসূচক রুমাল প্রদান করিলেন। পদকগুলি রৌপ্য নির্ম্মিত; পদকে এবং প্রশংসা পত্রে লাঞ্ছিত দিগের নাম লিখিত ছিল। সুরেন্দ্র বাবু নাম ধরিয়া একে একে সকলকে আহবান পূর্ব্বক পুষ্পমাল্যে সুশোভিত করিলেন এবং অবশেষে গাঢ় আলিঙ্গনে বদ্ধ করিয়া তাঁহাদিগকে পদকাদি ও প্রশংসা সূচক রুমাল উপহার দিলেন।

 যাহারা পদক, লকেট প্রভূতি উপহার প্রাপ্ত হইয়াছেন, তাহাদের মধ্যে অনেকেই সভায় উপস্থিত থাকিয়া সুরেন্দ্র বাবুর নিকট হইতে উপহার গ্রহণ করিয়া ছিলেন। যাহারা সভাস্থলে উপস্থিত হইতে পারেন নাই, তাঁহাদিগের নিমিত্ত প্রস্তুত পদকাদি সুবিধাক্রমে প্রেরিত হইবে এই মীমাংসান্তে তখন তুলিয়া রাখা হইল। প্রথমে সভার অধিবেশনস্থল সম্বন্ধে গোলযোগ ঘটায় সংবাদ আদান প্রদানের অনেক ব্যতিক্রম ঘটিয়াছিল। এমন কি শেষে জানা গেল অনেক লাঞ্ছিত ব্যক্তি আদৌ সংবাদ পান নাই। সহৃদয় মহাত্মার ক্রটি মার্জন করিবেন।