বিদায়-আরতি/হিন্দোল-বিলাস


হিন্দোল-বিলাস

প্রাণে মনে হিল্লোল
বনে বনে হিন্দোল
মেঘে মৃদঙের বোল মৃদু-মন্তর ;

শ্রাবণেরি ছন্দে
কদমেরি গন্ধে
তায় তুই চঞ্চল । চির-সুন্দর !

নিশাসে কি সৌবভ !
কালো চুলে মেঘ সব !
পশ্‌লায় পশ্‌লায় রূপ ধর্‌ গো ;

কালে চোখে বিতু্যৎ,
কোনোখানে নেই খুঁৎ,
অদ্ভুত! অদ্ভূত ! তুই স্বর্গ !

আরো কাছে আয় তুই
কালে৷ চোখে চোখ থই,
ভুলে থাকি দিন-দুই দুনিয়ার সব,


শুধু হাসি আর গান
শুধু সারঙের তান
ভালোবাসাময় প্রাণ—শুধু উৎসব ।

কে গেছে কে যায় তার
অতশত ভাব্‌নার
ফুরসুৎ নেই আজ নেই, বন্ধু !

তুমি আছ এই খুব,
ধ্যানে ধ’রে ওই রূপ
ভর্‌পূর চিত্তের সব তন্তু ।

এ মিলনে, অশ্রুর
মেশে যদি খাদ্‌ সুর
কি হবে তা’ ? হয় বা কি ভেবে বিস্তর ?

কেয়া-গুঁড়ি তবে মাখ ,
তুলে নে রে লাখে লাখ্‌
জুঁইফুল,—বিল্‌কুল চুলে তুই পর ।

অামি দেখি তন্ময়
চেয়ে চেয়ে মন্‌ময়
শত তারা যাক্‌ হেসে লাখ ইন্দু; –

যদিও এ বাদ্‌লায়
ঝিঁ ঝিঁ-ডাকা কাজলায়
নেই চাঁদ,—জ্যোৎস্নার নেই বিন্দু।