উৎসৃষ্ট

মিথ্যে তুমি গাঁথলে মালা
নবীন ফুলে,
ভেবেছ কি কণ্ঠে আমার
দেবে তুলে।
দাও তো ভালোই, কিন্তু জেনাে
হে নির্মলে—
আমার মালা দিয়েছি, ভাই,
সবার গলে।
যে-কটা ফুল ছিল জমা
অর্ঘ্যে মম
উদ্দেশেতে সবায় দিনু-
নমাে নমঃ॥

কেউ-বা তাঁরা আছেন কোথা
কেউ জানে না,
কারাে-বা মুখ ঘােমটা-আড়ে
আধেক-চেনা।

কেউ-বা ছিলেন অতীত কালে
অবন্তীতে,
এখন তাঁরা আছেন শুধু
কবির গীতে।
সবার তনু সাজিয়ে মাল্যে
পরিচ্ছদে
কহেন বিধি ‘তুভ্যমহং
সম্প্রদদে’॥

হৃদয় নিয়ে আজ কি, প্রিয়ে,
হৃদয় দেবে।
হায় ললনা, সে প্রার্থনা
ব্যর্থ এবে।
কোথায় গেছে সেদিন আজি
যেদিন মম
তরুণকালে জীবন ছিল
মুকুলসম-
সকল শােভা, সকল মধু,
গন্ধ যত
বক্ষোমাঝে বদ্ধ ছিল।
বন্দী-মতাে॥

আজ যে তাহা ছাড়িয়ে গেছে
অনেক দূরে-
অনেক দেশে, অনেক বেশে,
অনেক সুরে।
কুড়িয়ে তারে বাঁধতে পারে,
একটিখানে
এমনতরাে মােহন-মন্ত্র
কেই-বা জানে।
নিজের মন তাে দেবার আশা
চুকেই গেছে,
পরের মনটি পাবার আশায়
রইনু বেঁচে॥