তীর্থরেণু/বাসন্তী স্বপ্ন

বাসন্তী স্বপ্ন


আমার আঁধার ঘরে,
রাতে এসেছিল হাল্কা বাতাস
ফাল্গুনী লীলাভরে!
আমারে ঘিরিয়া ঘুরে ফিরে শেষে
চুপে চুপে বলে “ওরে!
উড়ু, উড়ু, মন উড়াব আজিকে,-
সাথে নিয়ে যাব তরে।”

সাগরে চলিল ধারা,
জ্যোৎস্না-জড়িত শতেক যােজন
মিলায় স্বপন পারা।
মন-রাখা ওগাে মনের রাখাল!
এনু কি তােমারি দেশে?
চান্দা নদীর কিনারে কিনারে
ফাগুনী হাওয়ায় ভেসে?

ক্ষণিক স্বপ্নবেশ
আঁখির পলক পড়িতে টুটিল,-
হ’য়ে গেল নিঃশেষ।
ব্যথিত নয়ন লুকানু যেমন
বিতথ শয্যা-মাঝে,

পরাণ আমার হ’ল উপনীত
অমনি তোমার কাছে!

কোথায় চম্পাপুর!
কোথা আমি, হায়, তুমি বা কোথায়,-
শতেক যোজন দূর!
মাঝে ব্যবধান গিরি, নদী, গ্রাম,
পথে বাধা শত শত,
সুপ্ত মু’খানি ছুঁয়ে এনু তবু,-
চকিতে হাওয়ার মত!

ৎসেন-ৎসান্‌।