স্পেনীয় মুসলমান সভ্যতা/সপ্তম অধ্যায়




বাণিজ্যের উন্নতি।

 স্পেনিস ও পর্ত্তুগীজ জাতি আরবদিগের নিকট হইতেই বাণিজ্যের প্রতি অনুরাগ প্রাপ্ত হয়। আরবদিগের বাণিজ্য জাহাজের সংস্রবে তাহারা ভারত ও প্রশান্ত সাগরীয় দ্বীপপুঞ্জ এবং ভারতবর্ষ, চীন ও আফিকার নানা স্থানে গমনাগমনে অভ্যস্ত হয়। বাণিজ্যনীতি, বিনিময় পদ্ধতি প্রভৃতি বিষয়ে তাহারা অভিজ্ঞতা লাভ করে। পরে মুসলমানদিগের গৃহ বিবাদের সূত্র অবলম্বন করিয়া তাহাদিগকে বিধ্বস্ত, বিতাড়িত, এবং নির্ব্বাসিত করিবার পরে বাণিজ্য ব্যবসায়ে অতুল শ্রীসম্পদ লাভ করিতে সমর্থ হয়। অতঃপর তাহাদিগের বাণিজ্যে, ভাগ্যের সুপ্রসন্নতা দর্শন করিয়া ক্রমশঃ তাহাদিগের পদানুসরণপূর্ব্বক যথাক্রমে ফরাসী, দিনেমার, ইংরাজ এবং অবশেষে জৰ্ম্মাণ ও ইটালীয়ানগণ বহির্বাণিজ্যে প্রবৃত্ত হইয়া অতি প্রসার সাধন করিয়াছে। স্বতরাং বৰ্ত্তমান জগতের এই বিপুল ও বিশাল বাণিজ্যোন্নতির মূলেও মুসলমানদিগের আদর্শ ও কৃতিত্ব বিরাজমান। মুসলমান আমলেই ইউরোপ উন্নত ধরণের সমুদ্রগামী জাহাজের নির্ম্মাণকৌশল অবগত হয়। স্পেন এবং আফ্রিকার মোস্‌লেমবন্দর সমূহ অন্যূন ৪০০ শত বৎসর পর্য্যন্ত সমগ্র ইউরোপের নৌযান সরবরাহ করিয়াছিল। মুসলমানেরাই সৰ্ব্ব প্রথমে জাহাজে দিগ্দৰ্শনযন্ত্র এবং সমুদ্রপথের মানচিত্র বা চার্টের (Chart) ব্যবহার সূচনা করেন। ভূমধ্যসাগর, লোহিত সাগর, ভারতসাগর, পারস্যসাগর, আরব সাগরের নানাস্থানে বাতি ঘর বা Light house এর বন্দোবস্ত করেন । সমুদ্রপথের মগ্ন পাহাড়গুলি আবিষ্কার করিয়া সেই সমস্ত স্থান চিহ্নিত করেন। ভারত ও প্রশান্ত সাগরীয় বহু অজ্ঞাত দ্বীপপুঞ্জ তাঁহারাই বাণিজ্য ব্যপদেশে আবিষ্কার করেন। আটলাণ্টিক সাগরের ক্যানার দ্বীপপুঞ্জও এই রূপেই তাহাদের দ্বারা আবিষ্কৃত হইয়াছিল। এই সমস্ত আবিষ্কার-গৌরবের অনেকাংশ স্পেনীয় আরবদিগেরও প্রাপ্য। বিশেষতঃ নবম শতাব্দীতে স্পেনীয় আরব লস্করগণই বাত্যাতাড়িত অবস্থায় পথভ্রান্ত হইয়া অকূল সাগরে ভাসিতে ভাসিতে অবশেষে আমেরিকায় যাইয়া উপস্থিত হন।[১] তথা হইতে স্বদেশে ফিরিয়া হাসিয়া এক বিরাট উর্ব্বরা দেশের বিষয় উল্লেখ করেন। কিন্তু আরবগণ তখন সেই দূরদেশে উপনিবেশ স্থাপন করিতে সাহসী হইয়াছিলেন না। পরে আরবদিগেরই পদানুসরণ এবং জনশ্রুতি অবলম্বন করিয়া ক্রীষ্টফার কলম্বস এবং আমেরিগো বেশপুচী আমেরিকা খণ্ডের আবিষ্কর্ত্তা বলিয়া পরিচিত হন। ফলতঃ আল্‌মোরিয়া, মালাগা আল-জেসিরাস্ কার্ত্তাজেনা প্রভৃতি স্পেনীয় মোস্‌লেম বন্দরে যে সমস্ত নৌ-বহর ও নাবিকগণের আবির্ভাব হইয়াছিল, তাহদের অধ্যবসায়, সাহস এবং বাণিজ্যপ্রিয়তা বিষয়ে চিন্তা করিলে হৃদয় গৌরব-পূর্ণ হইয়া যায়। হায়! মুসলমান, তোমার সেই অপরিসীম বাণিজ্যকুশলতা এবং দেশ-দেশান্তর গমনের আকুল উন্মত্ততার বিষয় চিন্তা করিয়া আবার কবে তুমি বাণিজ্য বিষয়ে উদ্বুদ্ধ হইবে! আবার সম্পদ-শ্ৰীতে কবে তুমি ঝলসিত হইবে ?


  1. ডাক্তার লিট্‌নার প্রণীত Sun in Islam দেখ।